পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 06 December, 2019 | 11:02:00 PM

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : দিনাজপুরের পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনি প্রথমবারের মতো লাভজনক প্রতিষ্ঠানে উন্নীত হওয়ায় প্রীতিভোজ ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। শুক্রবার পাথর খনির রক্ষনাবেক্ষণ, পরিচালন এবং উৎপাদন কাজে নিয়োজিত বেলারুশ ভিত্তিক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মানীয়া-ট্রেষ্ট কনসোর্টিয়াম (জি.টি.সি) পক্ষ হতে খনির অভ্যন্তরে এবং খনি এলাকায় পৃথক ০৩ টি স্থানে এই প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। পরে এলকাবাসীদের চিত্ত বিনোদনের জন্য এক সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। খনির সকল খনি শ্রমিক , কর্মকর্তা কর্মচারী এবং খনির এলাকার সকল পরিবারের প্রায় ১০ হাজার মানুষ এই প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানে অংশ নেন। জিটিসি সুত্র জানায়, বাংলাদেশ খনি শিল্পের ইতিহাসে অত্যাধুনিক মাইনিং প্রযুক্তির ব্যবহার এবং বিশ^মানের খনি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এই খনিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রুপান্তরিত করার প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত থাকতে পেরে পাথর খনির রক্ষনাবেক্ষন, পরিচালন এবং উৎপাদন কাজে নিয়োজিত বেলারুশ ভিত্তিক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মানীয়া-ট্রেষ্ট কনসোর্টিয়াম (জি.টি.সি)-তে কর্মরত সকল খনি শ্রমিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এই আনন্দঘন মহুর্তকে স্মরনীয় করে রাখতে মধ্যপাড়া পাথর খনির অভ্যন্তরে জিটিসি’র অফিস চত্ত্বরের প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানে কোম্পানীর অধীনে কর্মরত সকল খনি শ্রমিক এবং সকল কর্মকর্তা কর্মচারী, এমজিএমসিএল এর সকল কর্মকর্তা , কর্মচারী এবং সাংবাদিকবৃন্দ এবং এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্তিত ছিলেন। একই সময়ে খনি সংশ্লিষ্ট ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়নের গুড়গুড়ি মাদ্রাসা মাঠ, মৌলভীডাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ, পাকুড়িয়া মাজার শরীফ ও এতিম খানা মাঠ এই ৩ টি স্থানে খনি এলাকবাসীদের জন্য ও এক প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানে এছাড়া সন্ধ্যা ৫.৩০ মিঃ মধ্যপাড়া কলেজ মাঠে খনি এলাকার সর্বস্তরের জনগনের জন্য উন্মুক্ত এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গুড়গুড়ি গ্রামের বাসিন্দা মোঃ সাদেকুল ইসলাম বলেন, জিটিসি এই খনিতে পাথর উৎপাদনের ইতিহাসে রেকর্ড তৈরী করেছে বলেই এই খনিটি আজ লাভজনক হতে পেরেছে। এলকাবাসী জন্য প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় তিনি জিটিসিকে ধন্যবাদ জানান। মৌলভীডাঙ্গা গ্রামের প্রীতিভোজে অনুষ্ঠানে উপস্থিত রহিম বাদশা জানান, জিটিসি পাথর উৎপাদনের ইতিহাস সৃষ্ঠি করায় এই খনিটি আজ লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিনত হয়েছ। ফলে খনি এলাকার আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হয়েছে। এই অনুষ্ঠানের জন্য তিনি জিটিসি’র নির্বাহী পরিচালক জনাব জাবেদ সিদ্দিকীকে ধন্যবাদ জানান। পাকুরিয়া মাজার শরীর এলাকার আলমগীর জানান, জিটিসি’র এই প্রীতিবোজ অনুষ্ঠানের জন্য আমারা এলাকবাসী খুশী হয়েছি। খনি নাকি এই প্রথম লাভজনক হয়েছে তাই জিটিসিকে আমাদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি সকল প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানে প্রথান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব, এ্যাডঃ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এম.পি সভাপতি, প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ হাফিজুল ইসলাম প্রমানিক চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ পার্বতীপুর ও সভাপতি, উপজেলা আওয়ামীলীগ পার্বতীপুর, জনাব, আতাউর রহমান মিল্টন চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ ফুলবাড়ী। জনাবা শাহানাজ মিথুন মুন্নী উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পার্বতীপুর । জনাব মোঃ মোখলেছুর রহমান, অফিসার ইনচার্জ, পার্বতীপুর মডেল থানা। জনাব মোঃ শাহাবুদ্দিন শাহ সভাপতি, ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ । জনাব মোঃ মাসুদুর রহমান শাহ চেয়ারম্যান, ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়ন পরিষদ। জনাব মোঃ মোজহিদুল ইসলাম সোহাগ । সাবেক চেয়ারম্যান ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়ন পরিষদ।জনাব মোঃ জাবেদ সিদ্দিকী নির্বাহী পরিচালক, জিটিসি উক্ত অনুষ্ঠান সভাপতিত্ব করেন জনাব ড. মোঃ সিরাজুল ইসলাম কাজী চেয়ারম্যান, জার্মানীয়া-টেষ্ট কনসোর্টিয়াম (জিটিসি)।