Home » , » চিলাহাটিতে যৌতুক লোভী স্বামীর কারণে ঘর ভেঙ্গে যাচ্ছে মোহনার

চিলাহাটিতে যৌতুক লোভী স্বামীর কারণে ঘর ভেঙ্গে যাচ্ছে মোহনার

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 17 January, 2022 | 4:10:00 PM

চিলাহাটি ওয়েব ডেস্ক : নীলফামারী জেলার চিলাহাটিতে যৌতুকের টাকার জন্য শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামীর অবহেলা ও অমানুষিক নির্যাতনের শিকার এক গৃহবধূ।
এ নিয়ে নীলফামারী বিজ্ঞ আমলি আদালত ও জজ আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে- নীলফামারী জেলার চিলাহাটির কেতকীবাড়ি ইউনিয়নের বোতলগঞ্জ এলাকার নিজামুল সরকার মানিকের পুত্র সুজন ইসলাম (২৭) এর সাথে ২০২০ সালের ২৫ মে নিলফামারীর দারোয়ানি টেক্সটাইল মোল্লাপাড়া গ্রামের মহির শাহ্ এর কন্যা মনিরা আক্তার মোহনা (২০) এর বিয়ে হয়।
বিয়ের সময় জামাতাকে যৌতুকের সবকিছু বুঝিয়ে দেওয়া হলেও পরবর্তীতে আবারো ২ লক্ষ টাকা দাবি করে সুজন ও তার পরিবার। এক পর্যায়ে সে টাকার জন্য মোহনার উপর চালায় অমানুষিক নির্যাতন। এদিকে মোহনা তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। তার বাপের বাড়ি থেকে টাকা না আনার কারণে ২০২১ সালের ৬ মার্চ মোহনাকে অমানুষিক নির্যাতনের পর শশুর বাড়ি থেকে বের করে দেয়। মোহনা বাপের বাড়ি আসার পর পুত্র সন্তানের জন্ম দেয়।
মোহনা অভিযোগ করে বলেন- আমার বাবা আমার বিয়েতে সবকিছু দেওয়ার পরেও আমার শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমার সঙ্গে অমানুষিক নির্যাতন করে। আমার স্বামী পরকীয়ায় লিপ্ত আছে, তার জন্য সে আমার সঙ্গে এরকম আচরণ করছে। মোহনার বাবা মহির শাহা বেশ কয়েকবার আপোষ মীমাংসা করার চেষ্টা করেন, কিন্তু অর্থ লোভী স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা টাকা ছাড়া আপোষ মিমাংসায় বসতে নারাজ।
অবশেষে সুখ বিসর্জন দিয়ে মনিরা আক্তার মোহনা তার স্বামীসহ ৫ জন সদস্যের বিরুদ্ধে ২০২১ সালের ৫ ডিসেম্বর নীলফামারী বিজ্ঞ আমলি আদালতে একটি, ১৫ ডিসেম্বর তার স্বামীর বিরুদ্ধে দেনমোহরানা ও খোরপোষের দাবিতে একটি,বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বামীসহ ৬ জনকে আসামী করে একটি ও মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আসামিগন মেয়ের পরিবার ও সাক্ষীদের জীবন নাশের হুমকি প্রদান করলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উক্ত ৬ জনের বিরুদ্ধে পুনরায় একটি মামলা দায়ের করেন।