Home » » বিরামপুরে ৮টি স্বর্ণের বারসহ গোলজারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

বিরামপুরে ৮টি স্বর্ণের বারসহ গোলজারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 24 October, 2021 | 1:16:00 AM

মিজানুর রহমান মিজান, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার কাটলা বাজার এলাকা থেকে ভারতে পাচারকালে ৮টি স্বর্ণের বারসহ গোলজার হোসেন (৪০) নামের এক চোরাকারবারিকে আটক করেছে বিরামপুর থানা পুলিশ। আটককৃত চোরাকারবারি উপজেলার ২নং কাটলা ইউনিয়ন দক্ষিণ দামোদরপুর (বাসুপাড়া) গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে গোলজার হোসেন (৪০)। 
মামলা সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত ও অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) মতিয়ার রহমানের নেতৃত্বে এসআই শাহীন শেখ ও এএসআই সুলতান বাদশা নয়ন সর্ঙ্গীয় ফোর্স সহ উপজেলার কাটলা বাজার সংলগ্ন বিদ্যুৎ এর ছমিলের সামনে থেকে অভিনব কৌশলে শরীরে ফিটিং অবস্থায় ৮টি স্বর্ণের বার, ১টি স্যাম্পনি মোবাইল, ৬ হাজার ৬০ টাকাসহ গোলজার হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় একজন অজ্ঞাতনামা আসামী কৌশলে পালিয়ে যায়।
 অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) মতিয়ার রহমান জানান, শুক্রবার(২২ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি একজন চোরাকারবারি কাটলা বাজার থেকে দামুদরপুর (বাসুপাড়া) দিয়ে ভারতে স্বর্ণেরবার পাচার করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সর্ঙ্গীয় ফোর্সসহ কাটলা বাজারস্থ ২নং কাটলা ইউপিস্থ ১নং ওয়ার্ডের হরিহরপুর গ্রামের জনৈক হাসান মাহামুদ ওরফে বিদ্যুত (৩০) এর ‘ছ’ মিল এর সামনে তাঁকে দাঁড়ানোর সংকেত দেই। এসময় স্বর্ণ চোরাকারবারি পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ সদস্যরা তাঁকে ধাওয়া করে আটক করি। পরে তাঁর শরীর তল্লাশি করে অভিনব কৌশলে শরীরে ফিটিং অবস্থায় ৮টি স্বর্ণের বার, ১টি স্যাম্পনি মোবাইল, ৬ হাজার ৬০ টাকা উদ্ধার পূর্বক গোলজার হোসেনকে গ্রেপ্তার করি এবং অজ্ঞাতনামা একজন আসামী কৌশলে পালিয়ে যায়। 
বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ইউএনও পরিমল কুমার সরকার মহোদয়ের উপস্থিতিতে বিরামপুর স্বর্ণ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আমজাদ হোসেন মাধ্যমে ৮টি স্বর্ণের বারই পরীক্ষা দেখা হয় স্বর্ণ খাঁটি। যার ওজন ৭৯ ভরি ১৪ আনা ৪ রতি। আনুমানিক মূল্য প্রায় ৫২ লক্ষ টাকা। সেই সঙ্গে ১টি স্যামসাং মোবাইল, ৬ হাজার ৬০ টাকা উদ্ধার পূর্বক গোলজার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 
তিনি আরো জানান, এবিষয়ে ২৫ বি এর ১ (এ)/২৫-ডি ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা ধারায় থানায় মামলা হয়েছে। মামলা নং-২১, তাং ২২/১০/২০২১ইং। শনিবার (২৩ অক্টোবর) আসামীকে দিনাজপুর বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং পালাতক আসামীকে গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। 
 ইউএনও পরিমল কুমার সরকার জানান, আমার উপস্থিতিতে স্বর্ণের সঠিকতা যাচাই করা ও মাপা হয়েছে। স্বর্ণের বারগুলো ভারতের পাচারের উদ্দেশ্যেই আনা হয়েছিল বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।