Home » » ডোমারে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন ৩৮ ভূমিহীন পরিবার

ডোমারে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন ৩৮ ভূমিহীন পরিবার

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 24 January, 2021 | 5:37:00 PM

গোপাল চন্দ্র রায়-ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় “জমি নাই, ঘর নাই” এমন ভূমিহীন ৩৮ অসহায় পরিবার পেলেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার রঙ্গিন ঘর। শনিবার (২৩ জানুয়ারী) উপজেলা পরিষদের আয়োজনে কাগজপত্র হস্তান্তরের লক্ষ্যে ইউএনও র সভাকক্ষে ডাকা হয় তালিকা ভুক্ত ৩৮ জন সুবিধাভোগী পরিবারকে। প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সে সরাসরি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগদেন দেশের ৪টি জেলা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনের পর জমির কবুলিয়ত দলিল এবং খাজনা খারিজের কাগজপত্র আনুষ্ঠানিক ভাবে গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করেন ইউএনও শাহিনা শবনম। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনোয়ার হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক সরকার,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বেগম রৌশন কানিজ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি খায়রুল আলম বাবুল, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ এবং উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তাবৃন্দ। এসব ঘড় নির্মানকাজের তত্বাবধানে ছিলেন ইউএনও শাহিনা শবনম। তিনি জানান, মুজিব শতবর্ষে ডোমার উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ‘ক’ শ্রেণীর দরিদ্র পরিবারের বাসস্থান নিশ্চিত করতে উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন কেতকীবাড়ী ইউনিয়নে ৬টি, গোমনাতী ইউনিয়নে ১১টি, বামুনিয়া ইউনিয়নে ৯টি, বোড়াগাড়ী ইউনিয়নে ৭টি এবং হরিনচড়া ইউনিয়নে ৫টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। প্রতিটি ঘরের নির্মান ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা। প্রতিটি ঘরে থাকছে দুটি শয়নকক্ষ, ঘরসংলগ্ন একটি বাথরুম ও লেট্রিন, একটি রান্নাঘর এবং একটি করে বারান্দা। বাড়ীগুলোতে বিদুৎ ও পানির ব্যবস্থা করা হবে। ঘড় পেয়ে উল্লোসিত ও আনন্দিত তালিকা ভুক্ত পরিবারগুলো। জমি ও ঘড় পাওয়া পাঙ্গা মটুকপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা ছফরত আলী স্ত্রী আমেনা বেগমকে সাথে নিয়ে আসেন। তিনি জানান,আমি দিন মজুরী করে জীবিকা নির্বাহ করি। আমার ৪সন্তান তারাও মানুষের বাড়ীতে কাজকর্ম করে খায়। আমার কোন জায়গা জমি নাই। ঘড় ও জমি পেয়ে খুবই ভালো লাগছে। কেতকীবাড়ী ইউনিয়নের বাসিন্দা মমিনুর রহমান জানান,আমার মা এবং আমার তিন সন্তানসহ ৬ সদস্যের পরিবার। জায়গা জমি না থাকায় সরকারী খাস জমিতে থাকতাম। সেখানে পাকা ঘড় এবং জমির মালিক হতে পেরে আমি খুবই খুশি। আল্লাহ যেন প্রধানমন্ত্রীকে দীর্ঘজীবি করেন। # গোপাল চন্দ্র রায়-ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ