Home » » ১১৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রান্নাঘর তৈরিতে অনিয়ম

১১৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রান্নাঘর তৈরিতে অনিয়ম

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 09 June, 2020 | 10:39:00 PM

আফজাল হোসেন,ফুলবাড়ী প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : দারিদ্র পিড়িত এলাকায় এলাকায় স্কুল ফিডিং কর্মসূচির ফুলবাড়ী উপজেলায় ১১৮ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রান্নাঘর তৈরিতে অনিয়ম। প্রজেক্ট কো-অডিনেটর এর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রজেক্ট কো-অডিনেটর (পিসি) মোঃ সামসুল আলম গত ২০১৮ সালে জানুয়ারী মাসে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে তার কার্যক্রম চালাতে অনিয়ম দেখা যায়। ইএসডিও, এসএফপি ফুলবাড়ী এলাকার ১১৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দারিদ্র পিড়িত এলাকায় স্কুল ফিডিং কর্মসূচি প্রকল্পে উচ্চ পুষ্টি সম্পূর্ণ বিস্কুট বিতরেনও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। স্কুল ফিডিং কর্মসূচির আওতায় বাড়িতে বিস্কুট বিতরনের জন্য নির্দেশিকা রয়েছে। প্রতিটি শিক্ষার্থীর জন্য ৫০ প্যাকেটএর একটি ব্যাগ বা বক্স তাদের বাড়িতে পৌছে দিতে হবে। ফুলবাড়ীতে মে মাসে বিস্কুট বিতরনে কোন শিক্ষার্থী ৫০ প্যাকেট করে বিস্কুট পাননি। প্রত্যেক শিক্ষার্থী ৩০-৪০ প্যাকেট করে বিস্কুট পেয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা এবং অভিভাবকেরা না প্রকাশে অনিচ্ছুক তারা জানিয়েছে, ৫০ প্যাকেট বিস্কুট প্রজেক্ট কো-অডিনেটর (পিসি) মোঃ সামসুল আলম বিতরন করেনি। ফুলবাড়ী উপজেলার ১১৮টি স্কুলে রান্নাঘর তৈরিতে সরকারি বরাদ্য ছিল ৩৫ হাজার টাকা। প্রায় প্রত্যেকটি সরকারি প্রাথকি বিদ্যালয়গুলি ঘুরে দেখা যায় পরিবেশগতভাবে রান্নাঘর গুলি তৈরি করা হয় নি। নিম্নমানের ইট দিয়ে কোনরকমভাবে মেঝে ঢালাই দেওয়া হয়েছে। ঘরের টিনসহ যাবতীয় কাজে অনিয়ম হয়েছে। একজন শিক্ষক নাম না বলার শর্তে বলেন, রান্নাঘর গুলি তৈরিতে অনিয়ম হয়েছে। দেখার দায়িত্ব কার এ বিষয়ে আমরা তো কিছু বলতে পারিনা। এ বিষয়ে প্রজেক্ট কো অডিনেটর পিসি মোঃ সামসুল আলমের সাথে কথা বললে তিনি জানান, টেন্ডারের মাধ্যমে ৯০টি রান্না ঘরের কাজ করেছেন চিরির বন্দর উপজেলার মোঃ আব্দুস সালাম, বাকি ২৫টি রান্নাঘরের কাজ করেছেন আমাদের আফিস।