Home » » ঠাকুরগাঁওয়ে থামছেনা রাতের আধারে বহিরাগতদের প্রবেশ

ঠাকুরগাঁওয়ে থামছেনা রাতের আধারে বহিরাগতদের প্রবেশ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 16 April, 2020 | 10:04:00 PM

মাহমুদ আহসান হাবিব,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি, চিলাহাটি ওয়েব : বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, এ্যাম্বুলেন্সের পর এবার পণ্যবাহী কাভার্ড ভ্যানে করে রাতের অন্ধকারে প্রায় ৫০ জন মানুষ ঠাকুরগাঁওয়ে প্রবেশ করেছে। 
ঠাকুরগাঁও জেলা লকডাউন ঘোষণা করার পরও থামছেনা রাতের আধারে মানুষের প্রবেশ। ১৫ এপ্রিল বুধবার রাতে যাত্রী বোঝাই রাফি-রিফাত এজেন্সির একটি পণ্যবাহী কাভার্ড ভ্যান সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউপি অফিসের সামনে এসে থামে। যাত্রীরা কাভার্ড ভ্যান থেকে নামার পর স্থানীয় জনগণ তা দেখতে পায়। যাত্রীরা নেমেই যে যেদিকে পারে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এ
লাকাবাসী পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে কাভার্ড ভ্যানটিকে আটক করে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে নিয়ে যায়। এসময় পুলিশ মাত্র একজনকে আটক করতে সমর্থ হয়। সদর ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, আটককৃত ব্যক্তিকে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের হোস্টেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছে। 
 সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম জানান, আটককৃত ব্যক্তির ভাষ্যমতে কাভার্ড ভ্যানটিতে ২৮জনের মতো যাত্রী ছিলো এবং তারা চট্টগ্রাম থেকে এসেছে। তাদের আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি। স্থানীয়রা জানায়, রাত আটটার দিকে রহিমানপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনের সড়কে একটি কাভার্ড ভ্যান থেকে দল বেধে যাত্রীদের নামতে দেখে তারা পুলিশে খবর দেয় ও যাত্রীদের আটকের চেষ্টা করে। কিন্তু কাভার্ড ভ্যানের যাত্রীরা চারিদিকে ছুটে পালিয়ে যায়। অনেকে সাথের ব্যাগ ও পোটলা ফেলে পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের ধারণা কাভার্ড ভ্যানটিতে অর্ধশতাধিক যাত্রী ছিলো। 
 এর আগেও ঢাকা নারায়ণগঞ্জ থেকে শত শত মানুষ লকডাউন উপেক্ষা করে বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস ও এ্যাম্বুলেন্সে করে ঠাকুরগাঁও এসেছে ও গ্রামে গ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে। পায়ে হেঁটেও এসেছে অনেক মানুষ। জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম জানান, লক ডাউন ঘোষণার আগে বা পরে যারা অন্য জেলা থেকে এই জেলায় এসেছেন, তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ও তারা কঠোর নজরদারিতে রয়েছেন।