Home » » ঠাকুরগাওয়ের রুহিয়ায় ঢাকা ফেরত যুবকের বাড়িতে লাল পতাকাওড়ানোর এক ঘন্টার মধ্যে অপসারণ

ঠাকুরগাওয়ের রুহিয়ায় ঢাকা ফেরত যুবকের বাড়িতে লাল পতাকাওড়ানোর এক ঘন্টার মধ্যে অপসারণ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 11 April, 2020 | 8:54:00 PM

মকবুল হোসেন,রুহিয়া,থানা প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়ায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা জারি এবং লাল পতাকা ওড়ানোর এক ঘন্টার মধ্যে তা অপসারণ করে ফেলেছে ঢাকা ফেরত যুবক।
শুধু তাই নয়,লাল ঝান্ডা ওড়ানো চেয়ারম্যান মেম্বার সহ অন্যান্যদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেছে ওই যুবকের মা।ঠাকুরগাও সদর উপজেলার রুহিয়া থানার পশ্চিম কুজিশহর গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে শিমুল, ঢাকার ডেমরা এলাকায় একটি গার্মেন্টস এ কাজ করতো।
করোনা ভাইরাসের কারণে বেশিরভাগ গার্মেন্টস বন্ধ হয়ে গেলে ০৮এপ্রিল (বুধবার) শিমুল বাড়িতে আসে।এ ঘটনা জানাজানি হলে শুক্রবার দুপুরে রুহিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মনিরুল হক বাবু,ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক দুলাল রব্বানী, যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা,ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন (সালোয়ার) হোসেন,থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন সহ গ্রাম পুলিশের একটি দল ওই বাড়িতে যায় এবং ওই যুবককে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ জারি করে।সেই সাথে এলাকার মানুষকে সাবধানে থাকতে তাদের বাড়ির গেটে লাল ঝান্ডা উড়িয়ে দেয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান।
 হোম কোয়ারাইন্টাইনে থাকার নির্দেশনা জারির এক ঘন্টার মাথায় বেলা দেড়টায় ওই যুবক বাঁশের মাথায় লাগানো লাল ঝান্ডা অপসারণ করে ফেলে দেয় এবং চেয়ারম্যান মেম্বার সহ অন্যান্যদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন (সালোয়ার হোসেন) জানান,শিমুল বাড়িতে আসার পরদিনই খবর পেয়ে আমরা তাকে সাবধান করি এবং বাইরে বের না হতে অনুরোধ জানাই।কিন্তু তার মা রমিশা বেগম বেপরোয়া স্বভাবের হওয়ায় তারা তাদের ইচ্ছেমতো বেড়াবেন বলে প্রকাশ করে। 
২য় বার ইউপি চেয়ারম্যান আসেন।ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মনিরুল হক বাবু বলেন,ঢাকার ডেমরা ফেরত যুবক শিমুলের বাড়িতে লাল ঝান্ডা ওড়াতে গেলে সে বাঁধা দেয়।এতে ছাত্রলীগের কর্মীরা ওই যুবকের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। রুহিয়া থানার ওসি চিত্ত রন্জন রায় জানান,সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর যেসব ছেলে ঢাকা ও নারায়নগন্জ থেকে এসেছে তাদের মধ্যে এই ছেলেটিও ছিল। সে বাড়ি ফিরে ঘরে না থেকে যেখানে সেখানে ঘুরে বেড়ায়।এমনকি সে কাউকে মানে না বলেও শুনেছি। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে বিদেশ কিংরা ঢাকা সহ অন্যান্য জেলা হতে আগতদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে। 
এলাকার লোকজন যেন ঢাকা ফেরত ওইসব ব্যক্তির বাড়ি সহজে চিনতে পারে সেজন্য লাল ঝান্ডা ওড়ানো হচ্ছে।কোন ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে ইচ্ছেমতো যেখানে সেখানে ঘুরে বেড়ালে কিংবা লাল পতাকা অপসারণ করে ফেললে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।