Home » » কিশোরগঞ্জে রাস্তা প্রশস্ত করণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ

কিশোরগঞ্জে রাস্তা প্রশস্ত করণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 11 March, 2020 | 1:20:00 AM

মিজানুর রহমান,কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা হেড কোয়াটার থেকে বাবড়ীঝাড় পর্যন্ত পাকারাস্তাটি প্রশস্ত করণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।
জানা গেছে উপজেলা প্রকৌশল দপ্তরের তত্ত্বাবধানে নর্দান বাংলাদেশ ইন্টিগ্রেটেড ডিভোলেভমেন্ট প্রজেক্ট নামে ২০১৮-১৯অর্থ বছরে উপজেলা হেডকোয়াটার থেকে বাবরীঝাড় পর্যন্ত ৩ দশমিক ৭৮৫কিলোমিটার ৯ফিট প্রস্থের পাকা রাস্তাটি ১২ ফিট প্রশস্ত করার জন্য ১ কোটি ৮৫লাখ ৩৬ হাজার ৬০পয়সা বরাদ্দ ধরে দরপত্র আহবান করা হয়। দরপত্রে কার্যাদেশ পায় নীলফামারী সদর নীলপ্রতিভাপাড়ার ঠিকাদার দেলোয়ার হোসেন।এসময় চুক্তিমূল্য ধরা হয় ১ কোটি ৭০লাখ ৯৬হাজার ৫৮টাকা।
প্রকল্প এলাকার বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ, জাদুল ইসলাম, মন্জুরুল ইসলাম ও ফখরুল ইসলামসহ অনেকে বলেন রাস্তার দুপার্শ্বে ২০ইঞ্চি করে প্রশস্ত করার কথা। লেয়ারে বালু ও পানি দিয়ে রোলারের মাধ্যমে কমú্যাক্ট করে শক্তিশালী বেড তৈরী করার নিয়ম থাকলেও ঠিকাদার দেলোয়ার হোসেন তদারকি কর্মকর্তা সহকারী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমানের সাথে জোগসাজস করে বালুতে পানি নাদিয়ে শুধু হ্যামাড় দিয়ে কমপ্যাক্ট করে। সলিং মেরামত কাজে নতুন প্রথম শ্রেণীর ইট না দিয়ে ওই রাস্তার এজিংয়ের পুরনো ইট ব্যবহার করা হয় । এছাড়াও হেরিং বন্ডে নিম্নমানের ইট দিয়ে কাজ করা হয়েছে।
এদিকে প্রকল্প এলাকায় কাজের বিবারণ সংবলিত সাইন বোর্ড দেয়ার নিয়ম থাকলেও ঠিকাদার তা না করে তথ্য গোপন করার চেষ্টা করছেন বলে প্রকল্প এলাকার বাসিন্দারা দাবিকরে। এ ব্যাপারে তদারকি কমকর্তাকে কয়েকবার তারা মৌখিক ভাবে অভিযোগ করেছে কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি।
ঠিকাদার দেলোয়ার হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন আমি সিডিউল অনুযায়ী কাজ করছি। উপজেলা প্রকৌশল মজিদুল ইসলাম বলেন রাস্তা প্রশস্তকরন কাজে কোন অনিয়ম মেনে নেয়া হবেনা।