Home » » বদরগঞ্জে শত শত একর জমি অনাবাদি হয়ে পড়ার আশংকা

বদরগঞ্জে শত শত একর জমি অনাবাদি হয়ে পড়ার আশংকা

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 01 February, 2020 | 11:57:00 PM

আকাশ রহমান, বদরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঠিকাদার হামাক সবাকে শ্যাষ করি দিছে বাবা। হারা এখন কোনটে যামো। মোর মাত্র ১৫শতক ভুঁই আছিলো নালা খাকি খানিক দুরোত। ঠিকাদার নালা ডেসিং (ড্রেজিং) এর নামে মোর পৈত্রিক জমির উপর মাটি ফ্যালে দিয়ে ভুঁই শ্যাষ করি দিছে, এখন মুই ক্যাংকা করি ইরি আবাদ করিম। এই ভুঁই কোনায় মোর শেষ সম্বল আছিল। কথাগুলো আক্ষেপের সাথে জানালেন উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের লালদিঘি আকন্দপাড়া গ্রামের শারিরীক প্রতিবন্ধি জায়েদুল ইসলাম (৬২)। তিনি আরও জানান, মোর মতন আশে পাশের গ্রামের কমবেশি সউক মানুষের এই ক্ষতি করিল পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঠিকাদার। হারা এখন কোনটে যামো বাহে! অপর একজন কৃষক লালদিঘি উত্তরপাড়া গ্রামের আঃ মজিদ জানান, খালের নির্ধারিত সীমানা বাদ দিয়ে আমার পৈত্রিক ৩৩শতাংশ জমির মধ্যে ১৬শতাংশ জমি নষ্ট করে ফেলেছে। ওই এলাকার আরো এক কৃষক হারুন অর রশিদ জানান, জমির ক্ষতি করে ঠিকাদারকে কাজ বন্ধ করার অনুরোধ করলে আমাদের কথার কোন কর্নপাতই করেনি তিনি, উল্টো আমার পৈত্রিক ৫০শতাংশ জমির মধ্যে পাড় কেটে মাটি ফেলে ৩০শতাংশ জমিই নষ্ট করে ফেলেছে। রাধানগর ইউপির কাঁচিপাড়া গ্রামের অপর প্রান্তিক কৃষক বৃদ্ধ কসরোতুল্লাহ্ মন্ডল (৮০) তার জমির ক্ষয়-ক্ষতি দেখে মাথায় হাত রেখে বলেন, বাবা ঠিকাদার হামাক সবাকে শ্যাষ করি দিছে। ভুঁই তো নষ্ট করিল তার উপর যদি এই মাটিগুল্যা তাড়াতাড়ি না সারায় তাইলে হারা ইরি আবাদ করমো কেমন করি। খামো কি ? গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার রাধানগর ইউপির দিলালপুর মৌজায় পঁচা নালা খালে গিয়ে ঠিকাদারের কাজের অব্যবস্থাপনা ও খালের পাড়ের জমির প্রান্তিক চাষিদের আহাজারির চিত্রই চোখে পড়ে। জানা যায়, রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার রাধানগর ইউপির দিলালপুর মৌজায় অবস্থিত ২০.২২মিটার পঁচা নালা খাল, যা কিনা স্থানিয়দের কাছে দো-ধারা নালা নামে পরিচিত। সৈয়দপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক পঁচা নালা খালটি ড্রেজিং করার কাজটি পান ফরহাদ হোসেন নামে একজন ঠিকাদার। ঠিকাদার পঁচা নালা খালের গভীরতা না করে এলাকার কৃষকদের পৈত্রিক সম্পত্তির মাটি কেটে খালের পাড় উঁচু দেখিয়ে এবং কৃষকদের জমিতে মাটি ফেলে শত একর উর্ব্বর আবাদি জমিকে অনাবাদি করে ফেলছে। এ নিয়ে খাল সংলগ্ন আশে পাশের গ্রামের কৃষকরা বদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি অফিসার বরাবর অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন। এ ব্যাপারে ঠিকাদার ফরহাদ হোসেনের মোবাইল ফোনে (০১৭১২১৬৯৮৪৩) একাধিবার ফোন করলেও ফোন রিসিভ না করায় তার কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। সৈয়দপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলি রফিকুল ইসলাম জানান, ঠিকাদারকে পঁচা নালা খালের ড্রেজিং এর কাজ দেয়া হয়েছে। কিন্তু কৃষকের জমি নষ্ট করে কাজ করা এটা অন্যায় ও নিয়মবর্হিভুত কাজ। বদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি অফিসার নবীরুল ইসলাম জানান, ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের কাছ হতে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে ঠিকাদারকে নির্দেশ দিয়েছি, কৃষকদের জমি হতে মাটি সরিয়ে নিয়ে বিধি মোতাবেক কাজ করতে।