Home » » ফুলবাড়ীতে নামাজের সময় পুজা মন্ডবে মাইক বাজানোর জেরধরে সংঘর্ষ-৪ মুসুল্লিকে আটক

ফুলবাড়ীতে নামাজের সময় পুজা মন্ডবে মাইক বাজানোর জেরধরে সংঘর্ষ-৪ মুসুল্লিকে আটক

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 30 January, 2020 | 11:44:00 PM

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী প্রতিনিধিচিলাহাটি ওয়েব : দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে নামাজের সময় পুজা মন্ডবে মাইক বাজানোকে কেন্দ্র করে পুজা উৎযাপন কারীদের সাথে মুসুল্লিদের সাথে সংঘর্ষ ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিমা ভাংচুরের অভিযোগে ৪ মুসুল্লিকে আটক করেছে ফুলবাড়ী থানার পুলিশ। গত বুধবার সন্ধায় ফুলবাড়ী উপজেলার আলাদিপুর ইউনিয়নের জিয়াতগ্রাম এলাকায় মাগরিবের নামাজের সময়, হিন্দু সম্প্রদায়ের সরস্বতী পুঁজার মাইক বাজানোকে কেন্দ্রকরে, পুঁজা আয়োজকদের সাথে ওই এলাকার মসজিদের মুসুল্লিদের এই সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ওই দিন রাতে পুজা আয়োজক লোচন চন্দ্র বাদি হয়ে, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও হামলা চালিয়ে গ্রতিমা ভাঙচুরের অভিযোগে ৭ জন মুসুল্লির নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ১২জনকে আসামী করে ফুলবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ওই মামলায় বুধবার দিবাগত রাতেই ৪ জন মুসুল্লিকে আটক করেছে পুলিশ। আটকৃতরা হলেন, আলাদীপুর ইউনিয়নের জিয়ত গ্রামের মৃত ইব্রাহিম খলিলের ছেলে শহিদুল ইসলাম (২৫), আব্দুল মজিদের ছেলে আজিজুল ইসলাম (২৪), মৃত তছির উদ্দিনের ছেলে সেকেন্দার আলী (৪৫) ও মৃত মোজাফ্ফর মন্ডলের ছেলে মানিক মন্ডল (২৩)। মামলার বাদি তার এজাহারে উল্লেখ করেছে, ২৯জানুয়ারী জিয়ত গ্রামের শ্রী তাপস চন্দ্র রায়ের বাড়ীর উঠানে অস্থায়ী মন্দির নির্মাণ করে সরস্বতী পূজার আয়োজন করেন গ্রামবাসীরা। পূজাকে কেন্দ্র করে পূজা মন্ডপে মাইকসহ সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে গান-বাজনা বাজানো হয়। এরই মধ্যে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ওই অস্থায়ী মন্দির থেকে ৩০০ গজ দূরে থাকা ওই গ্রামের মসজিদের মুসুল্লিরা আন্তত ১০ থেকে ১২ জন আকস্মিকভাবে সরস্বতী পূজার ওই মন্দিরে হামলা চালায়। এদিকে ঘটনার বিষয়ে ওই এলাকার বাসীন্দা রুবেল হোসেন জানান, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন নামাজের সময় মাইক বাজানোর ফলে মসজিদের মুসল্লীরা মাইক বন্ধ করার কথা বলতে গেলে দু’পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়,তবে মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেনি বলেও তিনি জানান। থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, পূজা মন্ডপে হামলাসহ সরস্বতী প্রতিমা ভাংচুরের খবর পেয়ে ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিয়া মোহাম্মদ আশীষ বিন হাছান (পিপিএম) এর নেতৃত্বে তিনিসহ একদল পুলিশঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন। এরপর পুজা আয়োজকরা মামলা দায়ের করলে, মামলার ৪জন এজাহার ভুক্ত আসামীকে আটক করা হয়। আটককৃতদের গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুর কোটে প্রেরন করা হয়েছে।