Home » » কিশোরগঞ্জে ৪ বছরেও প্রতিবন্ধি ভাতা পায়নি রহিমা বেগম

কিশোরগঞ্জে ৪ বছরেও প্রতিবন্ধি ভাতা পায়নি রহিমা বেগম

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 05 December, 2019 | 11:06:00 PM

মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি, চিলাহাট ওয়েব : বুদ্ধি প্রতিবন্ধি হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার প্রায় ৪ বছরেও প্রতিবন্ধি ভাতা পায়নি রহিমা বেগম। তিনি নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই পানিয়াল পুকুর পূর্বপাড়া গ্রামের মজিদুল ইসলামের স্ত্রী। ৫ সন্তানের জননী রহিমা বেগম স্বামী সন্তানদের নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। গত মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে,রহিমা বেগম রাত কানা স্বামী মজিদুল ইসলাম,এক প্রতিবন্ধি ছেলে রকি (১২)সহ অন্যান্য ছোট বাচ্চাদের বাড়ীতে রেখে তিনি প্রতিবেশির বাড়ীতে ঝিঁয়ের কাজ করতে গেছেন। ঝিঁয়ের কাজ করে পরিবারের ৬সদস্যের খাদ্য জোগাতে হয় তাকে। ৫ বছর বয়সের ছোট ছেলে ভাতের জন্য কাঁদছে বলছে মা কখন ভাত নিয়ে আসবে, আমি কখন ভাত খাব। রহিমা বেগমের স্বামী মজিদুল ইসলাম বলেন আমার বড় ছেলে ২বছর আগে গাছের ডাল কাটতে গিয়ে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে। পরিবারে দুজন প্রতিবন্ধি সন্ধ্যার পর আমিও বাড়ী থেকে বের হতে পারিনা। আমার প্রতিবন্ধি স্ত্রীর রোজগারে খেয়ে না খেয়ে বেচে আছি। তিনি বলেন সমাজ সেবা অফিস থেকে ২০১৬ সালে আমার স্ত্রীকে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি নির্বাচিত করা হয়েছে। তারা বলেছিল প্রতিবন্ধি ভাতা করে দিবে। প্রতিবন্ধি কার্ড নিয়ে চেয়ারম্যান মেম্বারের পিছনে অনেক ঘুরেছি। তারা ৫ হাজার টাকা চায়। এত টাকা আমি এক বছরেও জোগাড় করতে পারবোনা। এছাড়াও আমি পানি উন্নয়ন বোর্ডের ক্যানেলের জমিতে বাস করছি। তারা বাড়ী সরানোর তাগিদ ও দিয়েছে। আমরা এখন বড় অসহায়। এব্যাপারে নিতাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন রহিমা বেগমকে প্রতিবন্ধি কার্ডের ফটো কপি দিতে বলেন এক মাসের মধ্যে কাজ করে দিব।