Home » » পার্বতীপুরে শিশু ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার-২

পার্বতীপুরে শিশু ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার-২

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 01 December, 2019 | 10:13:00 PM

বদরুদ্দোজা বুলু, পার্বতীপুর প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : পার্বতীপুরে আবিদা সুলতানা মীম নামে সাড়ে ৩ বছরের শিশু কণ্যাকে আমজাদ হোসেন (২১) নামে এক যুবক চকলেটের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। লাশ ঘরে তালাবদ্ধ রেখে ধর্ষক নিজেই এলাকায় নিখোঁজের মাইকিংয়ে অংশ নেন। পরে সুকৌশলে সটকে পড়ে সে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের রঘুনাথপুর মধ্যডাঙ্গাপাড়া গ্রামে। পরে নিহত ওই শিশুকে পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশ উদ্ধার করে। এঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিক্ষোভ করে ধর্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। সেই সাথে ওই ধর্ষকের বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে উত্তেজিত জনগণ। নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার (৩০ নভেম্বর) বেলা ৩টা থেকে আবিদা সুলতানা মীম নামের ওই শিশুকণ্যা নিখোঁজ ছিলো। বেলা ৪টার পর তাকে খুজে না পেয়ে এলাকায় মাইকিংয়ের মাধ্যমে শিশুর নিঁখোজের বিষয়টি প্রচার করে তার পরিবার। প্রচারের সময় একই এলাকার আমিনুল হকের ছেলে ধর্ষক আমজাদ হোসেন নিজে মাইকিংয়ের ভ্যানে ছিলো বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা। এদিকে মাইকিংয়ের সময় শাহিনুর আলম(৪০) নামের ওই ব্যক্তি মোবাইল ফোনে ধর্ষকের পিতা আমিনুল হককে ঘটনার বিবরণ দেয়ার সময় তার কথপোকথন শুনতে পায় একই এলাকার আব্দুল আউয়ালের ছেলে হাফিজুর রহমান। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। মীমের বন্ধু একই এলাকার রাশেদুল ইসলামের ছেলে জিহাদ(৫) তার পরিবারকে জানায়, অভিযুক্ত আমজাদ হোসেন নামে ওই যুবকের বাড়ির পাশে মীমসহ তার বন্ধুরা খেলতে গেলে চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে ঘরের নিয়ে যায়। তার কথার ভিত্তিতে মীমের পরিবার ধর্ষক আমজাদের বাড়িতে গেলে তালাবদ্ধ দেখতে পাওয়ায় পুলিশে খবর দেন। পুলিশ রাত আনুমানিক পৌনে ৮টায় তার শয়ন ঘরের দরজা ভেঙ্গে টেবিলের নিচ থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় ওই শিশুর নিথর দেহ পরে থাকতে দেখে। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্খ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। নিহত আবিদা সুলাতানা মীম উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের রঘুনাথপুর মধ্যডাঙ্গাপাড়া গ্রামের আরিফুল ইসলাম ও নাসরিন জাহানের একমাত্র কন্যা সন্তান। আজ রবিবার সকালে সরেজমিনে গেলে তার পিতা-মাতা ও স্বজনরা এ প্রতিনিধিকে বলেন, তাদের নিষ্পাপ শিশুকণ্যা মীমকে যারা নিষ্টুরভাবে হত্যা করেছে তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানান।এঘটনায় নিহতের পিতা আরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে ধর্ষক আমজাদ হোসেন (২১), চাচা শাহিনুর আলম (৪০) ও দাদী মমিনা বেগম (৫৫) তিন জনের নাম উল্লেখ করে পার্বতীপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে শনিবার রাতে শাহিনুর আলমকে (৪০) ও অপর আসামী রবিবার দুপুরে দাদী মমিনা বেগম (৫৫) কে গ্রেফতার করা হয়েছে। পলাতক ধর্ষক আমজাদকে গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।