Home » » পার্বতীপুরে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলের টাকা আত্মসাতের দায়ে গ্রেফতার-১

পার্বতীপুরে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলের টাকা আত্মসাতের দায়ে গ্রেফতার-১

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 01 November, 2019 | 10:30:00 PM



বদরুদ্দোজা বুলু, পার্বতীপুর প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : পার্বতীপুরে ৫ ব্যক্তির নামে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল হতে বরাদ্দের ২ লাখ ২০ হাজার টাকা জালিয়াতির মাধ্যমে উত্তোলন ও আত্মাসাতের এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা উদঘাটন করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত জালিয়াত চক্রের ৬ সদস্যের বিরুদ্ধে গত ৩১ অক্টোবর পার্বতীপুর মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এর আগে পুলিশ গত ৩০ অক্টোবর বিকেলে জালিয়াত চক্রের এক সন্দেহভাজন সদস্য ও পার্বতীপুর উপজেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের নৈশ প্রহরী এ¯্রারাফুল আলম (৪২) কে জিজ্ঞাসা-বাদের জন্য আটক করে। তাকেও জালিয়াতির মামলায় আসামী করা হয়েছে। মামলার অন্যা আসামীরা হলেন- পার্বতীপুর উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়নের উত্তর শালন্দার সরদার পাড়া গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে সাখাওয়াত হোসেন ওরফে ভোলা বিডিআর (৬০), একই গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে তহিদুল ইসলাম (২৮) ও মৃত চান মিয়ার ছেলে আমিনুল ইসলাম(৩৫)। এছাড়াও পার্শ¦বর্তী বড়হরিপুর শাহা পাড়া গ্রামের আজিমুউদ্দিনের ছেলে হাসান আলী(৫০) এবং বড়হরিপুর পোদ্দারপাড়া গ্রামের বীরেন্দ্র মহন্তের ছেলে সুমন মহন্ত (২৫)। মামলা সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল হতে আর্থিক সহায়তা বাবদ পার্বতীপুর উপজেলার বেলাইচন্ডি পূর্ব কাজীপাড়া গ্রামের মৃত ইদ্রিস কাজীর ছেলে আব্দুল খালেক কাজী ২০ হাজার টাকা, পার্বতীপুর শহরের ইব্রাহীম নগর মহল্লার রফিকুল ইসলামের ছেলে হাসান আলী রাজু ২০ হাজার টাকা, উত্তর হরিরামপুর গ্রামের মৃত মোজাহার আলীর ছেলে আবুল কাশেম ৩০ হাজার টাকা, মনমথপুর ইউনিয়নের বৈঞ্চবপাড়া গ্রামের মৃত ধর্ম নারায়ন রায়ের ছেলে উপেন্দ্র নাথ রায় ৫০ হাজার টাকা এবং পার্বতীপুর শহরের আমীরগঞ্জ মহল্লার মৃত নজির হোসেনের ছেলে শাহ মোঃ সাদীদুল ইসলাম ১লাখ টাকাসহ মোট ২লাখ ২০হাজার টাকা বরাদ্দ আসে। কিন্তু এসব অর্থ ও বরাদ্দের চিঠি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের হাতে পৌছানোর পূর্বেই পার্বতীপুরের একটি শক্তিশালী জালিয়াত চক্র প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কিছু অসাধু কর্মকর্তার সহযোগীতায় বরাদ্দের চিঠি হস্তগত করে ও চিঠির প্রেক্ষিতে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে তারা অনুদানের ৫টি চেক উত্তোলন করে। পরে চক্রটি বরাদ্দপ্রাপ্তদের নাম, ঠিকানা বহাল রেখে নিজেদের ছবি ব্যবহার করে অগ্রনী ব্যাংক পার্বতীপুর শাখায় গত ১৫ অক্টোবর হাসান আলী (হিসাব নং-০২০০০১৪১৬৯৪০০) ও আবুল কাশেম (হিসাব নং-০২০০০১৪১৬৯৯৫৮), ১০ অক্টোবর উপেন্দ্রনাথ রায় (হিসাব নং- ০২০০০১৪১৪৪৩৩৬) ও শাহ মোঃ সাদীদুল ইসলাম (হিসাব নং- ০২০০০১৪১৪৪২৬৪) এবং ১৭ অক্টোবর আব্দুল খালেক কাজী (হিসাব নং- ০২০০০১৪১৮৫৫৯৩) নামে ভূয়া ব্যাংক হিসাব খোলে। ব্যাংক একাউন্ট গুলোর সনাক্তকারী হিসেবে স্বাক্ষর করেন চন্ডিপুর ইউনিয়নের উত্তরশালন্দার সর্দারপাড়া গ্রামের আঃ মাবুদের ছেলে ও উপজেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের নৈশ্যপ্রহরী এ¯্রাফুল আলম(৪২)। জালিয়াত চক্র ভিন্ন ভিন্ন তারিখে চেকগুলো একাউন্টে জমা করে এবং পর্যায়ক্রমে পুরো টাকা হাতিয়ে নেয়। এদিকে, ৫ অনুদান প্রার্থী ব্যক্তিরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে খোঁজ নিতে গিয়ে তাদের নামে ইস্যুকৃত চেক বিতরণ করা হয়েছে বলে জানতে পারেন। পার্বতীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান গত ২৭ অক্টোবর ঘটনাটি জানতে পেরে শহরের বিভিন্ন ব্যাংক শাখায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রান ও কল্যাণ তহবিলের অর্থ উত্তোলনের জন্য কোন হিসেব খোলা হয়েছে কি না তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেন। এরই এক পর্যায়ে গত ৩০অক্টোবর অগ্রনী ব্যাংক পার্বতীপুর শাখায় খোঁজ নিতে গেলে জালিয়াত চক্রের ভূয়া একাউন্ট খোলা ও টাকা উত্তোলনের বিষয়টি নিশ্চিত হন তিনি। পরে সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় নথিপত্র জব্দ করেন।অগ্রনী ব্যাংক পার্বতীপুর শাখার ব্যবস্থাপক বিশ্বজিৎ রায় বলেন, যথাযথ প্রক্রিয়ায় কাগজপত্র দেখে হিসেব খোলা ও চেকের বিপরীতে অর্থ প্রদান করা হয়েছে। পার্বতীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান জানান, জালিয়াতির ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ অনুদান প্রার্থী শাহ মোঃ সাদীদুল ইসলাম বাদী হয়ে গত ৩১ অক্টোবর বিকেলে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় আটক এ¯্রাফুল কে আজ শুক্রবারা সকালে আদালতের মাধ্যমে দিনাজপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এতে জড়িত অন্যান্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে।