Home » » কিশোরগঞ্জে আমন ক্ষেতে ফড়িং ও কারেন্ট পোকার আক্রমন

কিশোরগঞ্জে আমন ক্ষেতে ফড়িং ও কারেন্ট পোকার আক্রমন

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 11 November, 2019 | 11:04:00 PM

মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : কিশোরগঞ্জ উপজেলায় দিগন্ত জোড়া আমন ক্ষেতে বাদামী গাছ ফড়িং ও কারেন্ট পোকা ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা কমে যাওয়ার আশংকা করছেন কৃষিরা। কিশোরগঞ্জ উপজেলায় এবারে ৯টি ইউনিয়নে দিগন্ত জোড়া আমন ক্ষেতে বাদামী গাছ ফড়িং ও কারেন্ট পোকা ছড়িয়ে পড়েছে। এতে কৃষকের সোনালী ক্ষেত আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অনেক এলাকার আমন ক্ষেত পোড়া যাওয়ার মত হয়েছে। উপজেলায় এ বছর আমন ধানের টার্গেট ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ৮শ’ ৬০ হেক্টর জমি। অর্জন হয়েছে ১৪ হাজার ৮শ ২৭ হেক্টর। এবারে পোকার ব্যাপকতার কারণে কাঙ্খিত অর্জন এখন স্বপ্নের মত। উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, বাদামী গাছ ফড়িং পোকার বংশ বিস্তারের জন্য এবারে প্রতিকুল আবহাওয়া থাকায় এর ব্যাপকতা ছড়িয়ে পড়েছে। দিনে গরম আর রাতে ঠান্ডা হলে বাদামী গাছ ফড়িং পোকা সহজেই বংশ বিস্তার করতে পারে। সদর ইউনিয়নের কামারপাড়ার জরিমুদ্দির ছেলে মইনুল ইসলাম জানান, ‘আমার ৫ বিঘা জমিতে বি,আর ১১ জাত ধানের মধ্যে দেড় বিঘা জমি কারেন্ট পোকার আক্রমনে সম্পূর্ণ শেষ। বাকী সাড়ে ৩ বিঘা জমিতে কারেন্ট পোকা আক্রমন করেছে।’ এদিকে চাঁদখানা ইউনিয়নের সরঞ্জাবাড়ী গ্রামের ইসমাইল সরকারে ছেলে এমদাদুল সরকার জানান, ‘আমার ১৫ বিঘা জমির মধ্যে ৫ বিঘা জমি কারেন্ট পোকায় আক্রান্ত। ঔষধ দিয়েও কোন কাজ হচ্ছে না। কিশোরগঞ্জ সদর ইউনিয়নের কৃষক মিজানুর রহমান বলেন আমি ১বিঘা (৩০শতাংশ) জমিতে বি,আর ১১জাতের ধান চাষাবাদ করেছি। কিন্তু কারেন্ট পোকার আক্রমনে ধান ক্ষেত জমিতেই খড় হয়ে গেছে। চাষী শরিফুল ইসলামসহ আরো অনেকে এসব কথা বলেন। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার হাবিবুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ‘কারেন্ট পোকা আক্রমনের কথা শুনিনি, তবে প্রতিবারেই এরকম অবস্থা থাকে তবে ব্যাপক নয়।