Home » » সঠিক চিনিও

সঠিক চিনিও

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 28 August, 2019 | 12:41:00 AM






















> এ আর আলম < 

 তোমাকে পেয়ে ভেবেছিলাম-
হয়তো সুখের সমুদ্র পেয়েছি
কিন্তু তোমাকে পেয়ে যা ভাবলাম
তা ভুল প্রমান হলো এই শিরোনামে-
তুমি সুখের সমুদ্র নও, নরক দহন।

 তোমাকে পেয়েছি এই দহনে
কেবল বিষ, বিষাক্ত পলক
টগবগানো জলের উত্তাল ঢেউ
পোসকা পড়েছে প্রতিটি নিঃশ্বাসে
এখন বেঁচে থাকা বড়ই করুন।

 তোমাকে পেয়েছি এমন নরকে
 যেখানে রয়েছে আগুনের ত্রাস
 অগ্নিকুন্ডে ধশে যাচ্ছি একা
তোমার আঁচলে স্বর্গ আনলে না
এনেছিলে এমন মরনের দহন!

তোমার আঁচলে এই নরকের বদলে
অমৃত'র সে স্বর্গ থাকতে পারতো
 যার প্রত্যাশায় তোমাকে সঙ্গী করেছি
 সে প্রত্যাশা এমন ফেসে যাবে ভাবিনি!
 তোমাকে পেয়ে সুখী নয়, বরং দুঃখীই হলাম,
হে প্রিয়জন এটা তোমার গর্ব না কলঙ্ক?

 উত্তরটা ভবিষ্যতের পাতাতে খুঁজে পাবে
তারপর ভেবে নিও হে নারী-
 তুমি কেমন রমনী ছিলে!
 অপ্সরী? নাকি অপ্সরীরুপের এক অভাগিনি!
যার আঁচলে জগত কোনদিন তৃপ্তি পায়নি
বরং ধিক্কার দিয়েছে অভিশপ্ত নাগিনী।

 যে ভালোবাসার এই জগতটাকে কেবল-
 পুড়িয়েছে, কাঁদিয়ে কলঙ্কিত করেছে!
নারী হিসেবে নিজেকে নিয়ে কি গর্ব করবে?
 যে এই জগতটাকে অভিশপ্ত করে হেসেছে
সে কি কোনকালে বুঝবে তার 'লজ্জা'?
যে লজ্জাটা এই যে,-
সে নারী ছিলো না ছিলো নারী রুপী নাগিনি!

 আপসোস্ করছি আমার ভাগ্য নিয়ে
যে ভাগ্যে একজন নারী নয়, নাগিনি মিলেছে
 যার বিষে বিষাক্ত আমার প্রতিটি স্পন্দন!
আপসোস্ করছি এই ভেবে, নারীকে শুধু-
নারীই ভাবলাম কেন? নাগিন ভেবে কেন-
যাচাই করিনি? করলে হয়তো এভাবে মরতে হতো না
জগত সুখের একজন তৃপ্ত সুখীও হতে পারতাম।

 হে প্রিয়জন,
 তোমার জন্য কেবল আমি সুখী হতে পারিনি
 বিষাক্ত বিষে পুড়ে নিঃশ্বেষ হয়ে গেছি!

 দুঃখ হচ্ছে, তোমার জন্য সুখের কবিতা লিখতে পারিনি
 কেবল মরন যন্ত্রণা লিখে যাচ্ছি!
যে যন্ত্রণা কোনদিন তোমাকেও পোড়াবে!
শুধু অপেক্ষা করো সে দিনটার জন্য,
তখন বিশ্বাস করো তুমি প্রেম নয় বিষ এনেছিলে
 যে বিষ তোমাকেও বিষিয়ে দেবে-
আরো ভয়ংকর নিয়মে, হজম করতে প্রস্তুত থেকো।

 প্রিয় বন্ধুরা,
সব নারীকে নারীই ভেবো না!
নাগিন যাচাই করে মন সপিও
অন্তত আমার মত নরক দহন সইতে হবে না
 হয়তো স্বর্গীয় সুখে তোমরাও হবে সুখী!
শুধু নারী আর নাগিন চিনে প্রেমটা করিও....