Home » , » চিলাহাটিতে বিজিবি ক্যাম্প ঘেড়াও

চিলাহাটিতে বিজিবি ক্যাম্প ঘেড়াও

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 22 April, 2019 | 4:29:00 PM

আপেল বসুনীয়া,চিলাহাটি ওয়েব : প্রকৃত ভারতীয় গরুচোরা কারবারী ২টি গরু বাংলাদেশের ভূখন্ডে পাঁচারের পর চোরাকারবারী গরু ফেলে পালিয়ে গেলেও ধরা পড়ে এলাকার নিরীহ এক যুবক।
ভোর হলেই হাজার হাজার নারী ও পুরুষ রাস্তা-ঘাটে, গাছের লগ ও বাঁশ ফেলে রাস্তা বন্ধ করে ডাঙ্গাপাড়ার ৫৬ বিজিবি ক্যাম্প ঘেড়াও করে রাখে। অবশেলে পুলিশ, বিজিবি ও ডোমার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা, এলাকার চেয়ারম্যান ও সুধী জনের পৃথক পৃথক তদন্তটিম তদন্ত শেষে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে বিজিবি ছেড়ে দিতে বাধ্য হলে এলাকা শান্ত হয়।
জানা গেছে, নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার চিলাহাটি সীমান্তবর্তী পুশনাবান এলাকার ৭৮৩ মেইন পিলারের পাশদিয়ে দীর্ঘদিন যাবত এই এলাকার আনারুলের পুত্র খোকন (৩৮) গোপনে ভারতীয় গরুর ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। গত ২২ এপ্রিল রাত আনুমানিক ২টার দিকে সীমান্ত পার করে ২টি গরু, যার আনুমানিক মূল্য ৪০,০০০ হাজার টাকা নিয়ে আসার পথে সীমান্তের ৫৬ বিজিবি’র সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে গরু দুটি ফেলে পালিয়ে যায়। 
উক্ত সময় পুশনাবান এলাকার কাদেরের পুত্র বিটুল (২৬) প্রাকৃতিক ডাকের সাড়া দিতে বাড়ির বাইওে এলে বিজিবি’র সদস্যরা প্রকৃত আসামীকে না ধরে এই নিরীহ ছেলেটিকে গ্রেফতার করে গরুসহ ডাঙ্গাপাড়া ক্যাম্প এ নিয়ে আসে। শুরু হয় চরম উত্তেজনা। ছেলেটিকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য হাজার হাজার নারী ও পুরুষ রাস্তা-ঘাট বন্ধ করে দিয়ে ক্যাম্প এর সামনে অবস্থান নেয়। বেগতিক দেখে ৫৬ বিজিবি সদস্যরা আশপাশের ক্যাম্প থেকে ব্যাপক বিজিবি’র সদস্য ডাঙ্গাপাড়া ক্যাম্প এ নিয়ে আসে।
অবশেষে ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিনিধি, ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান, চিলাহাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নুরুল ইসলাম, ভোগডাবুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান একরামুল হক, পরিষদের সদস্যবৃন্দ, চিলাহাটি এলাকার বিশিষ্টবর্গ স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ ও চিলাহাটি ৫৬ বিজিবি’র চিলাহাটি কম্পানি কমান্ডার সুবেদার আজম সরেজমিনে তদন্ত করে দেখা যায়, গ্রেফতারকৃত বিটুল নিরীহ ছেলে। সে এই ঘটনার সঙ্গে জরিত না। তাই তাকে ছেড়ে দেয়ার পর এলাকাটি শান্ত হয়ে যায়।