Home » » ডিমলায় ভুয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা

ডিমলায় ভুয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 04 April, 2019 | 11:11:00 PM

মাজহারুল ইসলাম লিটন,ডিমলা প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : নীলফামারীর ডিমলায় ভুয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারনা করা হচ্ছে। জানাগেছে, ২০১৬ইং সালে ব্র্যাক শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় উপজেলায় বিভিন্ন ইউনিয়নে ১ম শ্রেনী হতে ৫ম শ্রেনী পয্যন্ত ৪৪টি শিশু নিকেতন বিদ্যালয় খুলে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদান করা হত। ওই শিক্ষা কায্যক্রমের মেয়াদ শেষ হওয়ায় গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর ব্র্যাক হতে বিদ্যালয়গুলির শিক্ষা কায্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। শিক্ষা কায্যক্রম বন্ধ করে দেয়ার পরেও উপজেলা সদরের উত্তর তিতপাড়া(সোনাবেচা টারী)র শিশু নিকেতন মডেল বিদ্যালয়ের দায়িত্বে থাকা শিক্ষিকা ওই এলাকার মিজানুর রহমানের স্ত্রী তারা বানু(৩৫) শিক্ষা কায্যক্রম বন্ধ করে দেয়ার বিষয়টি ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কিংবা অভিভাবকদের কাছে গোপন রেখেই গত তিনমাস ধরে বিদ্যালযে অধ্যায়নরত ২৭জন শিক্ষার্থীদের নিকট ৩শ টাকা করে মাসিক বেতন হাতিয়ে নিয়ে বিদ্যালয়টি নিজ খেয়াল খুশি মত পরিচালনা করে আসছেন। এমতাবস্থায় শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা বিদ্যালয়ের কায্যক্রম বন্ধের বিষয়ে জানতে পেরে ওই শিক্ষিকা তারা বানুর নিকট শিক্ষা কায্যক্রম অব্যাহত রাখার কারন জানতে চাইলে। শিক্ষিকা তারা বানু বিভিন্ন তাল বাহানা করতে থাকে। এবং এক পর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে অভিভাবকদের মিথ্যা অপবাদ দিয়ে ফাদে ফেলার হুমকি প্রদান করেন। এদিকে নতুন সালের প্রায় ৪মাস অতিবাহিত হওয়ায় ওই বিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের অন্য কোন বিদ্যালয়ে ভর্তি করতে না পারায় শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবন ব্যহত হওয়ায়। দিশেহারা হয়ে অভিভাবকরা ওই শিক্ষিকার বিচারের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন। ব্র্যাক শিক্ষা কায্যক্রমের দায়িত্বে থাকা সিও রেজাউল করিম বলেন, গত বছরের ৩১শে ডিসেম্বর প্রোগ্রামটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষককে চিঠি দিয়ে শিক্ষা কায্যক্রম বন্ধ রাখার বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হয়েছে। তবুও যদি কেউ শিক্ষা কায্যক্রম পরিচালনা করে থাকে তবে তার দায়ভার সম্পুর্ন সেই শিক্ষকের।