Home » » কিশোরগঞ্জে আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সরব বিএনপি নিরব

কিশোরগঞ্জে আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সরব বিএনপি নিরব

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 24 January, 2019 | 11:19:00 PM

মিজানুর রহমান, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটাতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দৌড় ঝাপ শুরু হয়েছে ক্ষমতাসীন নেতা কর্মীদের। নির্বাচন কমিশনের ঘোষনা অনুযায়ী মার্চ মাসে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। তবে বিএনপি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিবে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যাযনি। নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কে পাবেন দলীয় মনোনয়ন তা নিয়ে চায়ের দোকানসহ পাড়া মহল্লায় আলোচনার ঝড় বইছে। সাবাদেশে উপজেলা নির্বাচনী আলোচনার ঢেউ যেন আচড়ে পড়ছে কিশোরগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে। এ ক্ষেত্রে বাদ পড়ছেনা হাট বাজারের চায়ের দোকানসহ পাড়া মহল্লাগুলো। সম্ভাব্য প্রার্থীদের নির্বাচনে অংশ গ্রহনের বিষযটি উল্লেখ করে প্রার্থীদের পক্ষে জোরে শোরে প্রচারনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এবারের উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পাটি থেকে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম শোনা যাচ্ছে। ক্ষমতাশীন দল ও তার জোটের শরীক দল দৌড় ঝাঁপ শুরু করলেও এখনও নিরব রয়েছে বিএনপি। তাদের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে বিতৃষ্ণ ভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আগামী মার্চ মাসে নির্বাচনের সম্ভবনা রয়েছে। এ নিয়ে প্রক্রিয়া শুরু করেছে স্থানীয় নির্বাচন অফিস। জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজানৈতিক দলগুলোর স¤্য¢াব্য চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা মাঠ পর্যায়ে সরব হয়ে উঠছেন। বিশেষ করে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের অনেকে এমপি এবং জেলা-উপজেলার শীর্ষ নেতাদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। স্থানীয় সরকার নির্বাচন গুলোর মধ্যে অন্যতম গুরুত্ব বহন করে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এ নিয়ে রাজনীতি সরগরম হয়ে উঠছে। এর আগে ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে নীলফামারী-৪ সৈযদপুর-কিশোরগঞ্জ আসনে বিজয়ী হয়েছেন জাতীয় পাটির প্রার্থী আদেলুর রহমান আদেল। ২০১৪ সালের অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জয়ী হয়েছিলেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি রশিদুল ইসলাম। ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা বিএনপির ওলামাদলের সভাপতি রুহুল আমিন, স্বতন্ত্রপ্রার্থী শিরিনা আক্তার। আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাজু , সাংগঠনিক সম্পাদক ও বাহাগীলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান প্রভাষক আতাউর রহমান শাহ দুলু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হাবিবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্চাসেবক লীগের সভাপতি পতিরাম চন্দ্র রায়, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আবুল কালাম বারী পাইলট। উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রশিদুল ইসলাম, জাতীয় পাটির নেতা ও বিশিষ্ঠ ঠিকাদার রশিদুল ইসলাম রশিদ, । ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক রবিউল ইসলাম বাবু, উপজেলা ছাত্র সমাজের সাবেক সভাপতি ও বিশিষ্ট সাংবাদিক মো: শামীম হোসেন বাবু, স্বতন্ত্র সম্ভ্যাব্য প্রার্থী আ.ন.ম রুহুল আমিনের নাম শোনা যাচ্ছে । উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শিরিনা আক্তার, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান নাছিমা সরকারের নামও শোনা যাচ্ছে।া উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে দলের হাই কমান্ড থেকে কোন নিদ্দের্শনা পাওয়া যায়নি। তাছাড়া বর্তমান সিইসির অধীনে কোন নির্বাচন সূষ্ট হতে পারেনা তা দেশবাসি হারে হারে প্রমান পেয়েছে। একারনে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে বিএনপি কোন আগ্রহ নেই।