Home » » কিশোরগঞ্জে ব্রীজ নির্মান কাজ শুরুতেই বন্ধ

কিশোরগঞ্জে ব্রীজ নির্মান কাজ শুরুতেই বন্ধ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 31 October, 2018 | 10:00:00 PM

মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার যমুনাশে^রী নদীর উপর নয়ানখাল পাকা রাস্তা হতে চন্ডিরবাজার ইসমাইল রাস্তায় ৬৯মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রীজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের পরেই বন্ধ হয়েছে নির্মান কাজ। ফলে দু’টি ইউনিয়নের মানুষজন যাতায়াতে চরম ভোগান্তিতে পরে। উপজেলা প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, ৩ কোটি ১২ লাখ ৭ হাজার ৫৪ টাকা নির্মান ব্যয় ধরে টেন্ডার আহ্বান করা হয়। টেন্ডারে কাজটি পায় খন্দকার বিল্ডার্স নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। চলতি বছরের গত ১২জুলাই ব্রীজটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের পরেই ব্রীজটির নির্মান কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। উপজেলা প্রকৌশলী কেরামত আলী নান্নু জানান, নির্মান কাজের নীতিমালায় বেসিন প্লান্ট মেশিন ব্যবহারের নির্দেশনা থাকলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি সেই নির্দেশনা না মেনে কাজ শুরু করেন। ফলে গত ২৪ সেপ্টেম্বর ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠনের সাথে চুক্তি বাতিল করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ব্রীজটি নির্মানে পূনরায় টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে। সিডিউল সরবরাহের শেষ তারিখ আগামী ১৪ নভেস্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান খন্দকার বির্ল্ডাসের সত্বাধীকারী এ কে এম ফাইমুজ্জানের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান, নীলফামারী এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী স্থানীয় অন্য একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগসাজোস করে আমার সাথে কাজের চুক্তি বাতিল করেন। এলাকাবাসি লুৎফর রহমান, জিয়াউর ইসলাম , মতিয়ার রহমান, আজগার আলী ও আব্দুস ছালামসহ আরোও অনেকেই বলেন, ব্রীজটির কাজ শুরুর কয়েকদিন পর কাজ বন্ধ হয়ে যায়। কবে নাগাদ কাজ শুরু হবে তা অনিশ্চিত। ব্রীজের কাজ সময় মত না হলে আমাদের দূর্ভোগ অনেকগুন বেড়ে যাবে। নীলফামারী এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী বেলাল হোসেন মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমি দিনাজপুরে একটি মিটিংয়ে আছি। এ বিষয়ে পরে কথা বলবো।