Home » » কিশোরগঞ্জে বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে দেয়ায় ভোগান্তিতে গ্রামের দুই হাজার মানুষ

কিশোরগঞ্জে বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে দেয়ায় ভোগান্তিতে গ্রামের দুই হাজার মানুষ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম News Editor : 08 September, 2018 | 11:12:00 PM

মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার উত্তর বড়ভিটা দলবাড়ী থেকে খোকার বাজার যাওয়ার রাস্তার ধ্ইাজান নদীর উপর নির্মিত বাঁশের সাঁকোটি শত্রুতা বসত ভেঙ্গে ফেলায় ওই গ্রামের প্রায় দুই হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পরেছে।এলাকাবাসি কয়েকজনের নামে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে। অভিযোগ ও সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, উত্তর বড়ভিটা থেকে খোকার বাজার যাওয়ার একটি সরকারী কাঁচা রাস্তা রয়েছে। এ রাস্তার সীমান্তবতী পুটিমারী ইউনিয়নের কিশামত ধাইজান পাড়া। ওই পাড়া দিয়ে বয়ে যাওয়া ধাইজান নদীর উপর যাতায়াতের জন্য একটি বাঁশের সাকো নির্মান করে বড়ভিটা উত্তর পাড়া এলাকাবাসি। ওই দুই পাড়ার মধ্যে জমি সংত্রুান্ত বিষয় নিয়ে ঝগড়া হলে গত ৩ সেপ্টেম্বর ধাইজান পাড়ার সেলিম মাষ্ঠারের নেতৃত্বে বাঁশের সাঁকোটি ভেঙ্গে দেয় তার লোকজন। ফলে বড়ভিটা ইউনিয়নের উত্তর পাড়া দলবাড়ী গ্রামের প্রায় ২ হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পরে। উত্তর পাড়া গ্রামের পুলিশ অফিসার (অবঃ)মোবারক আলী, ইউনুছ আলী ও শফিয়ার রহমান বলেন আমাদের খোকার বাজার যাওয়ার ওই একটি মাত্র রাস্তা ও বাঁশের সাকোটি একমাত্র ভরসা। সেটি শত্রুতা বসত সেলিম মাষ্ঠার ও তার লোপকজন ভেঙ্গে দেয়ায় আমরা ভোগান্তিতে পড়েছি। সেলিম মাষ্ঠারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এবারের বর্ষায় সরকারী রাস্তাটি নদীতে ভেঙ্গে গেছে। তারা আমার জমির উপর বাশেঁর সাকো নির্মান করেছে।এতে আমার চাষাবাদে জমির ক্ষতি হচ্ছে। অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা কিশোরগঞ্জ থানার সাব ইনন্সেপেক্টর আনোয়র হোসেন বলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দুই পক্ষকে ডেকেছে। মিমাংসা না হলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শেয়ার করুন :