Home » » প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 26 September, 2018 | 12:42:00 AM

আকাশ রহমান, বদরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার পানারহাট ঘিরনই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোস্তাক আহম্মেদের বিরুদ্ধে দপ্তরি পদের জন্য নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার রেজাউল ইসলাম নামে একজন ভুক্তভোগী উপজেলা নির্বাহি অফিসে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের পানারহাট ঘিরনই উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দপ্তরি নিয়োগের জন্য গত ২৪ মে/১৮ইং তারিখে জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় (দপ্তরি পদের জন্য) নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে আগ্রহী প্রার্থীদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহবান করা হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর বিদ্যালয় এলাকার পানারহাট ঘিরনই গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে মোঃ রেজাউল ইসলাম প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদিসহ ব্যাংক ড্রাফট করেন। দরখাস্ত করার পর আলোচনরা মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক মোস্তাক আহম্মেদ দপ্তরি প্রার্থী রেজাউল ইসলামের কাছ থেকে ৯লক্ষ টাকা খরচ বাবদ দাবি করেন। প্রধান শিক্ষকের কথা অনুযায়ী রেজাউল ইসলাম কিছু জমি বিক্রি করে গ্রামবাসীর উপস্থিতিতে প্রধান শিক্ষকের কাছে নিয়োগ বাবদ ৯লক্ষ টাকা প্রদান করেন। কিন্তু অর্থ লেনদেনের ৩মাস অতিবাহিত হলেও তাকে নিয়োগ না দিয়ে প্রধান শিক্ষক টালবাহানা করে আসছেন। এদিকে গত সোমবার(২৪ সেপ্টেম্বর) বিদ্যালয় চলাকালে দপ্তরি প্রার্থী রেজাউল ইসলাম বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে প্রধান শিক্ষকে নিয়োগ সংক্রান্ত ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রধান শিক্ষক তাকে ঘটনার মোড় ঘুরিয়ে উল্টো হুমকী দিয়ে তাড়িয়ে দেন। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার ভুক্তভোগী রেজাউল ইসলাম প্রধান শিক্ষকের নিয়োগ বাণিজ্যের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। এব্যাপারে ভুক্তভোগী রেজাউল ইসলাম বলেন, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর প্রধান শিক্ষক আমাকে নিয়োগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমার কাছে ৯লক্ষ টাকা নিয়েছেন। তার চাহিদা অনুযায়ী আরো টাকা দিতে পারিনি বলে তিনি আমাকে নিয়োগ না দিয়ে ওই পদে অন্য একজন পার্থীকে নিয়োগ দেওয়ার পায়তারা করছেন। এমনকি লোক মুখে শুনেছি প্রধান শিক্ষক দপ্তরি পদের জন্য একাধিকবার পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে একাধিক প্রার্থীর কাছে টাকা নিয়েছেন। তবে প্রধান শিক্ষক মোঃ মোস্তাক আহম্মেদ মোবাইল ফোনে তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, রেজাউল ইসলামকে দপ্তরি পদে নিয়োগ দেওয়ার কথা ছিল, কিন্তু নতুন নিয়মে প্রার্থীর বয়স ৩৭বছর পুর্ন হওয়ায় তাকে নিয়োগ দেওয়া সম্ভব নয়। বিদ্যালয়ের সভাপতি বদরগঞ্জ উপজেলা পিরষদের চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বি সুইট বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি এখন বাইরে আছি। এলাকায় গিয়ে প্রধান শিক্ষকের সাথে আলোচনা করে দেখা হবে সেখানে কি হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফজলে এলাহী বলেন, ভুক্তভোগী অভিযোগকারীর সাথে কথা বলে বিষয়টি দেখা হবে সেখানে কি হয়েছে? উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রাশেদুল হক অভিযোগ প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।