Home » » দিনাজপুর সদর থানায় ২ মাস পর হাফিজা হত্যার মামলা দায়ের

দিনাজপুর সদর থানায় ২ মাস পর হাফিজা হত্যার মামলা দায়ের

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 25 August, 2018 | 10:04:00 PM

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : দিনাজপুরের সদর থানায় ২মাস পর হাফিজা হত্যার মামলা দায়ের। ফুলবাড়ী উপজেলার পশ্চিম গৌরিপাড়া গ্রামের মো: হেকমত আলী’র কন্যা মোছা: হাফিজা বেগমের সাথে দিনাজপুর সদর উপজেলার পাচকুড় জালালপুর গ্রামের তমির উদ্দিন এর পুত্র মো: দেলোয়ার হোসেনের সাথে গত ৬ বছর আগে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিবাহ হয়। বিবাহের পর একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। পুত্র সন্তান জন্ম হওয়ার পর স্বামী মো: দেলোয়ার হোসেন যৌতুক এর দাবিতে প্রায় সময় হাফিজা বেগম কে মারপিট করতে থাকে। গত ১৮ জুন ২০১৮ ইং তারিখে পিতার নিকট থেকে যৌতুক এর টাকা আনার জন্য চাপ দেন। এক পর্যায়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে স্বামী মো: দেলোয়ার হোসেন মোছা: হাফিজা বেগম কে ঘরের ভিতর বেধম মারপিট করে অবশেষে হাফিজা বেগম মৃত্যু বরণ করে। হাফিজা বেগমের মৃত্যু হওয়ায় পাশন্ড স্বামী বাচার জন্য ঘটনাকে ভিন্ন খাথে প্রবাহের জন্য গলায় ওরনা পেচিয়ে ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে আটকিয়ে রেখে ঐ দিন সন্ধা ৬টায় হাফিজার শশুড় মো: তমিজ উদ্দিন হাফিজার পিতা হেকমত আলী কে মোবাইল ফোনে জানায় আপনার মেয়ে মারা গেছে। এই ঘটনায় হাফিজার পিতা মো: হেকমত আলী গত ২৬/০৭/২০১৮ ইং তারিখে ১১ (ক)/৩০ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ যৌতুকের জন্য মারপিট করিয়া হত্যা ও সহায়তা করার অপরাধে দিনাজপুর নারী শিশু দমন আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য দিনাজপুর সদর থানায় পাঠিয়ে দিলে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয় যার মামলা নং- ৬১, তাং- ১৪/০৮/২০১৮ ইং, জিআর নং- ১২১৬/২০১৮। মামলাটি তদন্ত করার দায়িত্বভার পেয়েছেন ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) আল মামুন মুহাম্মদ নাজমুল আহমেদ। হাফিজার পিতা মো: হেকমত আলী মেয়ে হত্যার সঠিক তদন্ত সাপেক্ষ ন্যায় বিচার চায়।