Home » » আগুনে পোড়ানো হলো পবিত্র কোরান: থানায় মামলা, সর্বমহলে উত্তেজনা ক্ষোভ

আগুনে পোড়ানো হলো পবিত্র কোরান: থানায় মামলা, সর্বমহলে উত্তেজনা ক্ষোভ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 08 July, 2018 | 11:59:00 PM

আজম রেহমান,ঠাকুরগাঁও ব্যুরো,চিলাহাটি ওয়্বে : ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় স্ত্রীর উপর রাগ করে পবিত্র কোরআন শরীফ আগুনে পুড়িয়ে মাটিতে পুঁেত দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এর প্রতিবাদে এবং দোষীর ফাসির দাবিতে ৫ জুলাই সন্ধায় এলাকাবসী ও ইমাম ওলামা পরিষদ অভিযুক্ত’র বাড়ী ঘেরাও করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে । এ ঘটনায় থানায় মামলা হলেও অভিযুক্ত ইসমাইল হোসে কে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। বিলম্বে প্রাপ্ত খবরে জানা যায়, গোগর ঝাড়বাড়ি গ্রামে আতর আলীর পুত্র ইসমাইল হোসেন (৫৫) এর, ৪ জুলাই সন্ধায় স্ত্রী আকলেমা খাতুনের সাথে পারিবারিক ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে স্ত্রী ঝগড়া এড়াতে কোরআন পড়তে বসেন। ইসমাইল হোসেন স্ত্রীর কোরআন শরীফ পড়া দেখে আরো রগান্বিত হয়ে পবিত্র কোরআন শরিফ পা দিয়ে লার্থি মেরে হাতে ছিড়ে তছনছ করে দেন। এতেও তিনি ক্ষান্ত হননি পরে ছেড়া কোরআন শরিফ আগুনে পুড়িয়ে মাটিতে চাপা দেন। ঘটনাটি পরের দিন ফাঁস হয়ে গেলে স্থানীয় ধর্মপ্রাণ মুসলিম লোকজন ও ঠাকুরগাঁও ইমাম ওলামা পরিষদের উদ্যোগে ইসমাইলের ফাসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করে বাড়ি ঘেরাও করে রাখা হয়। এমন ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে থানা পুলিশ উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করে আইনুযায়ী বিচারের আশ্বাস দেন ও পুড়িয়ে দেওয়া কোরআন শরীফ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। এঘটনায় গোগর দারুস সুন্নাহ কাওমী মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দলু মালেক বাদি হয়ে প্যানেল কোড’র ২৯৫ ধারায় ইসমাইলের বিরুদ্বে থানায় মামলা করেন, যার মামলা নং ০৯। এ ব্যাপারে ইমাম ও জেলা ওলামা পরিষদের সম্পাদক নুরুজাম্মান বলেন আসামীকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে ফাঁসি দেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলন হাতে নেওয়া হবে। অফিসার ইনর্চাজ আব্দুল মান্নান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,অভিযুক্ত’র বিরুদ্বে মামলা হয়েছে সে পলাতক রয়েছে তাকে দ্রুত গ্রেফতার করার জন্য আমরা যতসাধ্য চেষ্টা করছি।