Home » » পলাশবাড়ীতে জোড়পূর্বক মুক্তিযোদ্ধার জমি দখল করে ধান রোপন

পলাশবাড়ীতে জোড়পূর্বক মুক্তিযোদ্ধার জমি দখল করে ধান রোপন

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম News Editor : 30 July, 2018 | 11:33:00 PM

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার পবনাপুর ইউনিয়নের বালাবামুনিয়া মৌজায় পেশাশক্তির প্রভাব খাটিয়ে মুক্তিযোদ্ধার জমি দখল করে ধান রোপন করেছে পবনাপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগ সভাপতি দলিল লেখক সাঈদ আনোয়ার উজ্জল নামে এক স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,উপজেলার পবনাপুর ইউনিয়নের বালাবামুনিয়া মৌজার ১৫২ নং খতিয়ানে, জে এল নং ১৪০ ,হালদাগ ১৬০৪ এর ১২ শতাংশ জমির মধ্যে ৬ শতাংশ জমির মালিক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোক্তাদের খন্দকার লুলু। তাহার নিকট হতে এ জমিটি দীর্ঘ ৩৯ বছর ধরে বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করছে প্রতিবেশী কৃষক শফিকুল ইসলাম ম্যাঙ্গো। এবারে মৌসুমে জমি হালচাষ করে রোপনের জন্য প্রস্তুত করে এ বর্গা চাষী। গত ২৮ জুলাই শনিবার স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি দলিল লেখক সাঈদ আনোয়ার উজ্জলের লোকজন। এবং এ জমির বর্গা চাষী শফিকুল ইসলাম ম্যাঙ্গোকে জমিতে যেতে নিষেধ করেন। এমত অবস্থায় বর্গাচাষী জমির মালিক এম এ মোক্তাদের খন্দকার কে বিষয়টি অবগত করে। জমিটির নিকটে বসবাসকারী মজনু জানান, দীর্ঘদিন ধরে জমির মালিক মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোক্তাদের খন্দকার লুলুর নিকট হতে বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করছে স্থানীয় কৃষক শফিকুল ইসলাম ম্যাঙ্গো। এ জমির প্রকৃত মালিক মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোক্তাদের খন্দকার লুলু। তারা স্বপরিবারের ঢাকায় বসবাস করে। ঢাকায় স্বপরিবারের বসবাস করায় তাদের সকল জমাজমি বর্গাচাষীরা চাষাবাদ করে। এখন শুনতেছি উক্ত জমিটি বর্গা চাষী শফিকুল ইসলাম ম্যাঙ্গোকে জমিতে যেতে নিষেধ করে সাঈদ আনোয়ার উজ্জলের লোকজন ধান রোপন করেছে। বর্গাচাষী শফিকুল ইসলাম ম্যাঙ্গোর পরিবার জানায় দীর্ঘদিন হলে এ জমিটি বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করছি আমরা । সেই হতে ফসলের ভাগ পায় জমির মালিক মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোক্তাদের খন্দকার লুলু।এবারে মৌসুমে জমিটিতে ধান রোপনের জন্য চাষ করে নেওয়ার পর দলিল লেখক উজ্জল ধান রোপনে নিষেধ করে ও উজ্জল শ্রমিক দিয়ে ধান রোপন করে। জোড় পূর্বক পেশাশক্তির প্রভাব খাটিয়ে জমিতে ধান রোপনকারী দলিল লেখক সাঈদ আনোয়ার উজ্জল এর সঙ্গে যোগাযোগ করলে মুঠোফোনে জানান,আমি আমার জমিতে ধান রোপন করেছি কারো জমি আমি দখল করি নাই। তবে উপরোক্ত জমির দাগ ও খতিয়ান নাম্বার জানতে চাইলে তিনি বলতে পারেনি। জমির মালিক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোক্তাদের খন্দকার লুলু জানান, ওর্য়াড আওয়ামীলীগ সভাপতি দলিল লেখক সাঈদ আনোয়ার উজ্জল পেশাশক্তির প্রভাব খাটিয়ে বর্গা চাষীকে জমিতে যেতে নিষেধ করে জোড় পূর্বক আমার পত্রিক জমিতে ধান রোপন করেছে। আমার পত্রিক জমি উদ্ধারে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগীতা কামনা করছি। এবিষয়ে উক্ত ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য খন্দকার জিন্নাহ জানান, জমিটা মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোক্তাদের খন্দকারের বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করতো শফিকুল ইসলাম ম্যাঙ্গো। ঘটনাটির সাথে জড়িত উভয় পক্ষ একই গোষ্ঠীর আত্মীয় স্বজন তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন হলো নানা বিষয় নিয়ে দ্বন্দ কোলহ মামলা মোকাদ্দোমা চলছে। তবে কয়েকদিন হলো পরিষদের কাজে ব্যস্ত থাকায জমি দখলের বিষয়টি আমার জানা নেই।
শেয়ার করুন :