Home » » কিশোরগঞ্জে প্রেমের শারীরিক মেলামেশার মূল্য লাখ টাকা

কিশোরগঞ্জে প্রেমের শারীরিক মেলামেশার মূল্য লাখ টাকা

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 08 May, 2018 | 12:43:00 AM

মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়ের : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা দক্ষিন চাঁদখানা সারোভাষা গ্রামে গত রোববার এক সালিশ বৈঠকে অনার্স প্রথম বর্ষের এক তরুনের ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। অনেকেই বলছেন প্রেমের শারীরিক মেলামেশার মূল্য লাখ টাকা। এঘটনায় এলাকায় চাপাক্ষোভ বিরাজ করছে। সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে, সারোভাষা গ্রামের দশম শ্রেণীর ছাত্রীর সাথে ওই গ্রামের মনিরুজ্জামানের ছেলে অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র শাকিল আহম্মেদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। তারা পবস্পর দু’জনে চাচা ভাতছি সম্পর্ক হওয়ায় এলাকাবাসি তাদের মেলা মেশা কখনো সন্দেহের চোখে দেখেনি। শাকিল আহম্মেদ এ সম্পর্ককে কাছে লাগিয়ে প্রেমিকাকে বিয়ের মিথ্যে প্রলোভন দিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষন করে আসছিল। গত শবেবরাত রাত ১২টা দিকে প্রতারক প্রেমিক প্রেমিকার সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হলে এলাকাবাসি তাকে ধরে ফেলে বিয়ে করার চাপ দেয়। কিন্তু শাকিল বিয়ে করতে রাজি না হলে তার পরের দিন প্রেমিকা তার বাড়িতে গিয়ে স্বামীর স্বৃকীতির দাবিতে অনশন শুরু করে। এঘটনায় গত রোববার ছেলের বাড়ীর উঠানে একটি সালিশ বৈঠক বসে। বৈঠকে চাঁদখানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান, ৬নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার সিরাজুল ইসলামসহ এলাকার আরো ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিল। মেয়ের বাবা অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল হওয়ায় সালিশ বৈঠকের বিচারকরা মেয়েকে অন্যত্র বিয়ে দেয়ার জন্য শাকিলের পিতা মনিরুজ্জামান মন্টুর এক লাখ টাকা ধর্ষনের শাস্তি হিসেবে জরিমানা করে।ধর্ষিতার পিতা বলেন টাকা দিয়ে কি করব। এই মেয়েটিকে আমি কোথায় বিয়ে দিব। সালিশের বিচাবকদের কাছে আমার দাবি ছিল, যে ছেলে আমার মেয়ের ইজ্জত কেড়ে নিয়েছে তার সাথেই বিয়ে দেয়ার।সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বার সিরাজুল ইসলামের কাছে ঘটনার বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন ছেলের পরিবারের সাথে মেয়ের পরিবারের সামাজিক অবস্থার মিল না হওয়ায় টাকা আদায় করে নিয়ে মেয়ের বাবাকে দেয়া হয়েছে।চাঁখানা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান বলেন ছেলে বিয়ে করতে রাজি না হওয়া তার বাবার কাছে এক লাখ টাকা নেয়া হয়েছে।কিশোরগঞ্জ থানা অফিসার ইনর্চাজ বজলুর রশিদ বলেন ঘটনাটি শুনেছি তবে স্থানীয়ভাবে মিমাংসা হয়েছে তা জানিনা। সচেতন মহলের প্রশ্ন এ সব ঘটনার বিচার করার কতটুকু ক্ষমতা স্থানীয় সালিশগণের।