Home » » বদরগঞ্জে পরীক্ষা দেওয়া হলো না আব্দুর রহমানের

বদরগঞ্জে পরীক্ষা দেওয়া হলো না আব্দুর রহমানের

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম News Editor : 29 April, 2018 | 11:52:00 PM

আকাশ রহমান,বদরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : চলমান এইচ এসসি পরীক্ষা শেষে বাড়ী ফেরার পথে আব্দুর রহমান নামে এক পরিক্ষার্থীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। তিনি এখন সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। গত ২৪এপ্রিল মঙ্গলবার বিকালে পৌরশহরের চাঁদকুঠি এলাকার হ্যালীপ্যাড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এমন কি চলমান পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে না পেরে ওই শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন থেকে মুল্যবান একটি বছর ঝরে গেল বলে তার পরিবারের সদস্যরা আক্ষেপ করে বলেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার তালুক দামোদরপুর ইউনিয়নের বানুয়াপাড়া গ্রামের মৃত করিম উদ্দিনের পূত্র আব্দুর রহমানের সাথে একই এলাকার মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে আব্বাস আলীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত ২৪ এপ্রিল আব্দুর রহমান বদরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা (সমাজ-বিজ্ঞান) দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে বদরগঞ্জ শহিদ মিনার সংলগ্ন কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের সামনে থেকে দুর্বৃত্তরা তাকে জোর পূর্বক একটি অটোচার্জার ভ্যানে তুলে নিয়ে চাঁদ কুঠিরডাঙ্গা এলাকার হ্যালীপ্যাডে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গিয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে লোহার রড দিয়ে এলোপাতাড়ীভাবে পেটায়। এরপর তার পেটের বাম পার্শে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। পরে এলাকা বাসি তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এদিকে আহত আব্দুর রহমানের বড় ভাই রুহুল আমিন জানান, আমার ভাইকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টায় আমি বদরগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করে অভিযোগ দায়ের করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ অজ্ঞাত কারণে আমার অভিযোগপত্রটি গ্রহণ করেনি। উল্টো আমাকে শাসিয়ে সেখান থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে। দিনি আরো বলেন, আমার ভাই বাকি পরীক্ষাগুলো দিতে না পেরে তার জীবন থেকে মুল্যবান একটি বছর ঝরে গেলে। অথচ, আমরা বদরগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। তবে অভিযুক্ত আব্বাস আলির সংঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, তিনি বলেন ওই ঘটনার সংঙ্গে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই। কে বা কারা আব্দুর রহমানকে মারধর করেছে, আমি কিছুই জানিনা। গতকাল রবিবার বদরগঞ্জ থানার ওসি আনিসুর রহমান জানান, বিষয়টি আমার কাছে সাজানো মনে হয়েছে, তাছাড়াও তারা কেহ অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্তপুর্বক দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
শেয়ার করুন :