Home » » পার্বতীপুরে খামার সরিয়ে নিতে প্রশাসনের নির্দেশ

পার্বতীপুরে খামার সরিয়ে নিতে প্রশাসনের নির্দেশ

আফজাল হোসেন ফুলবাড়ী প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : জনবসতিপূর্ণ এলাকায় অপরিকল্পিত ভাবে মুরগীর খামার গড়ে ওঠায় এবং পরিবেশগত বৈধতা না থাকায় উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা একটি খামার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। পার্বতীপুর উপজেলার ১০নং হরিরামপুর ইউনিয়নের বেলঘাট সুলতানপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে ছাইফুল ইসলাম প্রতিবেশী মামুনুর রশিদের বাস ভবনের খুব নিকটবর্তী স্থানে একটি মুরগীর খামার গড়ে তোলে। এতেকরে খামারের র্দূগন্ধে বাড়িতে বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়লে পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট প্রতিকার চেয়ে আবেদনের প্রেক্ষিতে সু-যোগ্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরফদার মাহামুদুর রহমান উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসারকে অভিযোগের মর্মানুযায়ী ব্যবস্থাগ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করেন। সংশ্লিষ্ট ভ্যাটেনারী সার্জন ডাঃ মোঃ আসাদুজ্জামান সরেজমিনে তদন্ত সাপেক্ষে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন- ব্যাক্তি খামার টি বসত ভিটার অতি নিকটে হওয়ায় বাতাসে সর্বদা বাড়ি ঘরে র্দূগন্ধ ছড়ায় এতে করে মানুষ বসবাসের স্বাভাবিক পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে যা, পশু রোগ আইন-২০০৮ এর খামার স্থাপনের পরিপন্থি, প্রাণি সম্পদ দপ্তরের রেজিষ্টেশন নাই। খামারটি যেমন অবৈধ তেমনি পরিবেশ দূষন কারী। নীতিগত ভাবে মুরগীর খামার মনুষ্য বসতি থেকে দূরে ও নির্জন পরিবেশে হওয়া বাঞ্জনীয়। পরিবেশগত দিক থেকে কোন বৈধতা ও রেজিষ্টেশন বিহীন খামার সরকারের বিধি লঙ্ঘনের সামিল হওয়ায় খামারটিকে ১ মাসের মধ্যে লোকালয় থেকে দূরে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। এদিকে ভুক্ত ভোগী মামুনুর রশিদ প্রশাসনের উদ্যগকে স্বাগত জানিয়েছেন। খামার মালিক ছাইফুল ইসলাম বলেন, জন দূর্ভোগ করে আমি কোন ব্যবসা করতে চাইনা। এক শ্রেণির সুবিধা বাদি অসাধু ব্যবসায়ী নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে ঘরের কোনায় কোনায় যে ভাবে মুরগীর মিনি খামার তৈরীতে মেতে উঠেছে এতে করে স্বাস্থ্যা সম্মত ভাবে বসবাস করাই কঠিন।
শেয়ার করুন :