Home » » কিশোরগঞ্জে নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য অবরুদ্ধ

কিশোরগঞ্জে নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য অবরুদ্ধ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 26 March, 2018 | 10:34:00 PM

মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : নীলফামারীর-৩ (জলঢাকা-কিশোরগঞ্জ) সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তাফাকে ৩০ মিনিট অবরুদ্ধ করে রাখেন অখন্ড দাবী বাস্তবায়ন কমিটির নেতা কর্মীরা। পরে পুলিশের সহযোগিতার তিনি ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। আজ ২৬ মার্চ কিশোরগঞ্জ ষ্টেডিয়াম মাঠে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে তিনি এ পরিস্থিতির মুখোমুখি হন।
সূত্র জানায়,সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন কার্যালয় থেকে সংসদীয় আসন কিশোরগঞ্জ উপজেলাকে অখন্ড রেখে একটি খসড়া তালিক প্রকাশ করা হয়। কিন্তু নীলফামারীর -৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা পূর্বে ন্যায় খন্ডিত সংসদীয় আসন ঠিক রাখার দাবি করে নির্বাচন কমিশনে লিখিত আপত্তি দায়ের করে। গত ২৬ মার্চ মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্টানে যোগ দিতে কিশোরগঞ্জ ষ্টেডিয়ামে আসলে তিনি প্রথমে মুক্তিযোদ্ধাদের তোপের মুখে পড়ে। এরপর অখন্ড সংসদীয় আসন দাবী বাস্তবায়ন কমিটির নেতা কর্মীরা তাকে ঘিরে ফেলে অশালিন ভাষায় গালি গালাজ করে। এ সময় তিনি ৩০মিনিট অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। পরিস্থিতি বে-গতিক দেখে তিনি নির্বাচন কমিশন থেকে আপত্তি তুলে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। তার এ প্রতিশ্রুতিতে কমিটির নেতা কর্মীরা প্রশমিত হয়। পরে তিনি পুলিশের সহযোগীতায় ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা কমিটির ডিপুটি কমান্ডার এ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হোসেন ঘটনার বিষয় স্বীকার করে বলেন, অখন্ড সংসদীয় আসন নিয়ে কারো ষড়যন্ত্র বরদাস্ত করা হবে না। তিনি যেই হোক না কেন?
অখন্ড সংসদীয় দাবী বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক ও বাহাগিলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান শাহ দুলু বলেন,গত ৬মাস ধরে আমরা অখন্ড সংসদীয় আসন বাস্তবায়নের লক্ষে আমরা আন্দোলন করে আসছি। নির্বাচন কমিশন আমাদের ন্যায্য দাবী মেনে নিয়ে খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে। কিন্তু চুড়ান্ত সময় নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন। তার এই ষড়যন্ত্র আমরা শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে হলেও মোকাবেলা করবো।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বাবুল একই কথা বলেন।
নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফার সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি তাকে অবরুদ্ধ করার বিষয় অস্বীকার করে বলেন,আমার চেষ্টা আমাকে চালিয়ে যেতে হবে। দীর্ঘদিন থেকে সংসদীয় নীলফামারী-৩ আসন এভাবেই চলে আসছে এবং এতে কারো সমস্যা হয়নি।
কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ বজলুর রশীদ বলেন,মুক্তিযোদ্ধা সদস্যরা ও অখন্ড সংসদীয় আসন দাবী কমিটির নেতা কর্মীদের উত্তপ্ত বাক্য মিনিময় হয়েছে। অবরুদ্ধের মত কোন ঘটনা ঘটেনি।