Home » » বদরগঞ্জে আম-লিচুর বাগানে মধু চাষ

বদরগঞ্জে আম-লিচুর বাগানে মধু চাষ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম News Editor : 15 March, 2018 | 11:33:00 PM

আকাশ রহমান বদরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : রংপুরের বদরগঞ্জে প্রকৃতি জুড়ে এখন বসন্ত মৌসুম। উপজেলার পল্লী এলাকাগুলোতে মৌমাছিদের গুনগুন শব্দে কান ঝালা পালা। তবে কোন বন্য মৌমাছি নয়, বাক্সে চাষ করা শিকারী মৌমাছি। চলতি মৌসুমে এই অঞ্চলে আম ও লিচুর মুকুলের উপর নির্ভর করে মৌয়ালরা এসেছে অনেক দুর থেকে। সাথে নিয়ে এসেছে বাক্স বন্দি বিরল প্রজাতির রাণী ও লাখে লাখে ঝাঁকে ঝাঁকে কর্মী মৌমাছি। মৌয়ালরা নিজেদের সুবিধামত আশ্রয় নিয়েছে বিভিন্ন এলাকার লিচু বাগানে। সেখানে দিনরাত পরিশ্রম করে মধু সংগ্রহ করছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার কালুপাড়া ইউনিয়নের একটি লিচু বাগানে সরেজমিনে গেলে চোখে পড়ে মধু সংগ্রহের বাস্তব চিত্র। সেখানে ১০-১২জন মৌয়াল বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত আছে। কেউবা মুখোশ পরে পুরনো বাক্স থেকে মৌচাক বের করে মধু সংগ্রহের জন্য প্রস্তুত করছে। আবার কেউরা পুরনো বাক্স বদলিয়ে নতুন বাক্সে মাছিদের জন্য নিরাপদ আবাস্থল তৈরি করছে। মৌয়ালদের মত কর্মী মাছিরাও বসে নেই। মৌমাছিরা দলবেধে ঝাঁকে উড়ে গিয়ে ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করে বাক্সের চাকে জমিয়ে রাখতে ব্যস্ত রয়েছে। সেখানে মৌমাছি ও মৌয়ালদের কর্ম ব্যস্ততায় উৎসব মুখর হয়ে উঠেছে মধু মৌসুম। এ বিষয়ে কথা হয় সাতক্ষিরা থেকে আগত মৌয়াল মোকারম হোসেনের সাথে তিনি জানান, এই লিচুবাগানে মৌমাছির বাক্স রয়েছে আড়াইশটি। সাত থেকে দশদিনের মধ্যে বাক্সগুলো থেকে মধু সংগ্রহ করা হয়। এই মধু সংগ্রহ অভিযান চলবে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত। প্রতি সপ্তাতে প্রায় ১২মন মধু সংগ্রহ করা সম্ভব। তবে ফুলের উপর নির্ভর করে মধুর পরিমান। তিনি আরো জানান; চলতি মৌসুমে এই বাগান থেকে ৫০মন মধু সংগ্রহ করার লক্ষ্যমাত্রা হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রতি মন মধুর বিক্রি করা হয় ৬-৭হাজার টাকায়। এই মধু দেশের বিভিন্ন কোম্পানির চাহিদা মিটিয়ে ভারতে রফতানী করা হয়। তিনি আরো জানান; ভারতীয় কোস্পানী সস্তা দামে মধু কিনে বিদেশে রফতানী করে। অথচ মধু কেনে আমাদের কাছ থেকে। এছাড়াও এই পেশার সঙ্গে যুব সমাজের একটি বড় অংশ জড়িত রয়েছে। সরকারী কোন পৃষ্টপোষকতা না থাকায় সম্ভাবনাময় এই মধু চাষ শিল্পের কোন অগ্রসর লক্ষ্য করা যাচ্ছেনা। মধু চাষে সরকারী পৃষ্টপোষকতা থাকলে এই শিল্পের মাধ্যমে এদিকে যেমন অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আসত। তেমনি দুর হতো বেকারত্ব সমস্যা। বদরগঞ্জ উপজেলা উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কনক চন্দ্র রায় জানান; আম ও লিচু বাগানে মধু চাষ এটি একটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তিতে যেমনি মধু পাওয়া সম্ভব তেমনি আম ও লিচুর ফলন দ্বিগুন হওয়া সম্ভব। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান; উপজেলার বহু আম ও লিচু বাগানে এখন মধু চাষ হচ্ছে। এটি একটি ইতিবাচক দিক।