Home » » বদরগঞ্জে গাছ কাটায় বাধা দেওয়ায় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বদরগঞ্জে গাছ কাটায় বাধা দেওয়ায় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 02 January, 2018 | 12:14:00 AM

আকাশ রহমান, বদরগঞ্জ প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : রংপুরের বদরগঞ্জে গাছ কাটা বাধা দেওয়ায় কীটনাশক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। নিহতের নাম আসাদুজ্জামান (৩৫) তিনি উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের দিলালপুর সুতারপাড়া গ্রামের ছবকাদ মাষ্টারের একমাত্র ছেলে। গতকাল সোমবার রংপুর মর্গে লাশের ময়না তদন্ত শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা ছবকাদ মাষ্টার বাদী হয়ে বদরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে আসামীরা লাপাত্তা। 
প্রত্যক্ষদর্শী ও গ্রামবাসী জানায়, ওই গ্রামের ছবকাদ মাষ্টারের সাথে প্রতিবেশী নাজিমুল ইসলামের ছেলে সুজন মিয়া ও তার লোকজনের সাথে বসতভিটা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে গত রবিবার (৩০ডিসেম্বর) দুপুরে ছবকাদ মাষ্টারের উঠানে গ্রাম সালিসের আয়াজন করা হয়। কিন্তু গ্রাম প্রতিপক্ষ সুজন গ্রাম সালিস অমান্য করে তাৎক্ষনিক ছবকাদ মাষ্টারের বাড়ীর সীমানার একটি লিচু গাছ কর্তন করে।
 এসময় মাষ্টারের একমাত্র ছেলে কীটনাশক ব্যবসায়ী আসাদুজ্জামান গাছ কর্তনে বাধা প্রধান করলে ক্ষিপ্ত সুজন তাকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর রাত আটাইটায় তার মুত্যু হয়। ওই ঘটনার পর থেকে আসামীরা বাড়ীঘর ছেড়ে পালিয়ে যায়। এবিষয়ে গতকাল সোমবার ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গেলে ওই গ্রামের সমাজসেবক আকবর আলী থানা পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানান, এই ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য সচিন্দ্রনাথ এবং সাবেক ইউপি সদস্য মমতাজ আলীর ভুল সালিসের কারণে আসাদুজ্জামানকে অকালে প্রাণ হারাতে হল।
 ইউপি সদস্যরা এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে বাদদিয়ে গোপন বৈঠকের মাধ্যমে বিরোধের নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করায় এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে। এরজন্য দুই ইউপি সদস্য সম্পুর্ণভাবে দায়ি। তবে ..ওয়ার্ডের সালিস বৈঠকের আয়োজনকারী ইউপি সদস্য সচিন্দ্রনাথ বলেন, সালিস বৈঠক ভেস্তে যাওয়ায় আমি ঘটনাস্থল ত্যাগ করেছি। পরে সেখানে কি ঘটেছে আমি কিছুই বলতে পারব না। ঘটনাস্থল তদন্তকারী বদরগঞ্জ থানার এসআই আতিক হত্যাকান্ডের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামীরা পলাতক থাকায় এখন পর্যন্ত কাইকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।