Home » » ডোমারে এক বছরেও ছেলের উপর নির্যাতনের বিচার পাননি

ডোমারে এক বছরেও ছেলের উপর নির্যাতনের বিচার পাননি

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 09 May, 2017 | 11:53:00 PM

আব্দুল্লাহ আল মামুন,ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি,চিলাহাটি ওয়েব : আমাকে ভিটে ছাড়া করার উদ্দেশ্যে এক বছর আগে আমার বড় ছেলে মিরাজের দুটি আঙ্গুল কেটে দেয় বাড়ীর পাশেই কিছু ব্যাক্তি। তার পরেও আমি থানায় মামলা না করে বিষয়টি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে অবগত করি। তখন ইউপি নির্বাচন থাকায় মেম্বার ও চেয়ারম্যান আমাকে ভোট না হওয়া পর্যন্ত চুপ থাকতে বলে। কিন্তু ভোট হবার এক বছর হয়ে গেলেও আমার ছেলের উপর অত্যাচারের কোন বিচার করেনি মেম্বার-চেয়ারম্যান। কথাগুল্ োবলেই কান্নায় ভেঙ্গে পরেন অসহায় পিতা নুরুজ্জামান(৪৫)।তিনি উপজেলার ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের মৃতঃজয়নাল আবেদিনের ছেলে।তিনি বলেন, তার ছেলের উপর অত্যাচারের বিচার না হওয়ায় ঐসব অপরাধীরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেন। জানাগেছে উপজেলার বামুনিয়া ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড বারবিশা বামুনিয়া গ্রামের মৃতঃমোক্তার হোসেনের তিন ছেলে ইদ্রিছ আলী(৪০),বাচ্চাউ(৪২ ও দুলাল হোসেন(৩৫), সামান্য ঘটনায় একই এলাকার নুরুজ্জামানের বড় ছেলে গোসাইগঞ্জ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেনীর ছাত্র মিরাজ বাড়ীর বাইরে খেলতে গেলে তারা তার দুটি আঙ্গুল কেটে দেন। এ সময় মিরাজ চিৎকার করতে থাকলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে রংপুর মেডিক্যেল কলেজ হাসপাতালে হস্তান্তর করা হয়। ঘটনার এতদিন পরেও বিচার না হওয়ায় অবশেষে নুরুজ্জামান এ ব্যাপারে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। নুরুজ্জামান জানান মামলার আসামীরা এখন নানা ভাবে তাকে হুমকি প্রদান করছে। এবং মামলা তুলে নেওয়ার জন্য স্থানীয় মেম্বারকে দিয়ে তাকে চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে।তিনি বলেন আমি আট বছর আগে এখানে বাড়ী করার পর থেকে তারা আমার পিছনে লেগে আছে। তাই বাধ্য হয়ে তাদের অত্যাচারের হাত থেকে বাচতে আমি আদালতে ১০৭ ধারা টিটিশন মামলা করলে তারা আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং ্আমার বড় ছেলের মত আমারও অঙ্গহানী করবে বলে হুমকি প্রদান করে আসছে। বিষয়টি ইউপি সদস্য স্বপনকে অবগত করলে সে আমাকে এলাকা থেকে চলে যেতে বলে এবং বিচার না করে উল্টোভাবে আমার উপর নানাভাবে হুমকি প্রদান করে আসছে।তিনি এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।