Home » » দিনাজপুর শিক্ষা বোডের্র এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ৮৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ

দিনাজপুর শিক্ষা বোডের্র এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ৮৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 04 May, 2017 | 7:17:00 PM

চিলাহাটি ওয়েব ডেস্ক : দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ২০১৭ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। গড় পাশের হার ৮৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৯২৯ জন। তবে এবারে পাশের হার ও জিপিএ-৫ দু’টোই কমেছে। মোট ১৬৩৫৭২ পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৭৩৬২ জন। গতবারের তুলনায় এবার পাশের হার কিছুটা বাড়লেও জিপিএ-৫ প্রাপ্তির হার কমেছে। গতবার জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৮ হাজার ৮৯৯ জন। এছাড়া শতভাগ পাশ করা বিদ্যালয়ের সংখ্যাও কমেছে। এবারে শতভাগ পাশকৃত বিদ্যালয় ১৬৬টি যা গতবারে ছিল ২৬৯টি। বৃহস্পতিবার (৪ মে) দুপুর সাড়ে ১২টায় পরীক্ষার ফল ঘোষনা করেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান। দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ২০১৭ সালের এসএসসি পরীক্ষায় ১ লাখ ৬৩ হাজার ৫৭২ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাল ৩৭ হাজার ৩৬২ জন। গড় পাশের হার ৮৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ। বরাবরের মত এবারেও ছাত্রীদের পাশের হার বেশি। ছাত্রীদের পাশের হার ৮৫ দশমিক ৭৬ শতাংশ আর ছাত্রদের পাশের হার ৬২ দশমিক ৩০ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৯২৯ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ৩ হাজার ৯৩৪ জন এবং ছাত্রী ২ হাজার ৯৯৫ জন। বিজ্ঞান বিভাগে ৭১ হাজার ১৭৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৬৫ হাজার ৬২৪ জন। উত্তীর্ণদের মধ্যে ৩৮ হাজার ৯ জন ছাত্র ও ২৭ হাজার ৬১৫ জন ছাত্রী। বিজ্ঞান বিভাগে গড় পাশের হার ৯২ দশমিক ২০ শতাংশ। মানবিক বিভাগে ৮৬ হাজার ২০৫ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৬৬ হাজার ৪১৬ জন। এদের মধ্যে ২৭ হাজার ৫৪৮ জন ছাত্র ও ৩৮ হাজার ৮৬৮ জন ছাত্রী। মানবিকে বিভাগে গড় পাশের হার ৭৭ দশমিক ০৪ শতাংশ। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৬ হাজার ১৮৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৫ হাজার ৩২২ জন। এদের মধ্যে ৩ হাজার ৮০৬ জন ছাত্র ও ১ হাজার ৫১৬ জন ছাত্রী। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে গড় পাশের হার ৮৫ দশমিক ৯৯ শতাংশ। এবারে গত বারের চেয়ে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে। গতবার জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৮ হাজার ৮৯৯ জন কিন্তু এবারে পেয়েছে ৬ হাজার ৯২৯ জন। এবারে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৮০৭ জন। মানবিক বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ৫৯ জন ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৩ জন। শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান জানান, এ বছর নকলের দায়ে ৫৯ জন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে। কেউই পাশ করেনি এমন বিদ্যালয়ের সংখ্যা মাত্র ১টি যা গতবার ছিল ২টি। শতভাগ পাশ করেছে এমন বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১৬৬টি যা গতবারে ছিল ২৬৯টি। তিনি জানান, গণিতে সৃজনশীল প্রশ্নপত্রের কারণে এবারে প্রায় ১৮ হাজার পরীক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছে। দিনাজপুর বোর্ডে অধীনে রংপুর বিভাগের ৮টি জেলার ২ হাজার ৬০৬টি বিদ্যালয় ২৫২টি কেন্দ্রের মাধ্যমে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এটি দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীনে অষ্টম এসএসসি পরীক্ষা।ফলাফল ঘোষণার সময় শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. হারুন-অর-রশিদ, সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. রাকিবুল ইসলাম, বিদ্যালয় পরিদর্শক রবীন্দ্র নারায়ন ভট্টাচার্য, উপ-বিদ্যালয় পরিদর্শক মো. আলতাফ হোসেনসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে জেলা ভিত্তিক ফলাফলে প্রথম স্থানে রংপুর জেলা। রংপুরে পাশের হার ৮৫ দশমিক ৭১ শতাংশ, দ্বিতীয় নীলফামারী জেলায় ৮৬ দশমিক ৫৭ শতাংশ, তৃতীয় গাইবান্ধা জেলায় ৮৪ দশমিক ৯৬ শতাংশ। এছাড়া ঠাকুরগাঁও জেলায় ৮২ দশমিক ২১ শতাংশ, লালমনিরহাট জেলায় ৮১ দশমিক ০২ শতাংশ, কুড়িগ্রাম জেলায় ৮০ দশমিক ৯৬ শতাংশ, পঞ্চগড় জেলায় ৭৮ দশমিক ৭৭ শতাংশ ও সবার নীচে দিনাজপুর জেলায় ৭৭ দশমিক ৭২ শতাংশ।