Home » » নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে চলছে পার্বতীপুর মধ্যশিলা উচ্চ বিদ্যালয়

নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে চলছে পার্বতীপুর মধ্যশিলা উচ্চ বিদ্যালয়

চিলাহাটি ওয়েব ডটকম : 04 May, 2017 | 7:08:00 PM

চিলাহাটি ওয়েব ডেস্ক : নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে চলছে পার্বতীপুরের মধ্যশিলা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়। আর অবসরপ্রাপ্ত ও বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগে জানা যায়, অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তৈয়ব উদ্দিনের সময় প্রতিষ্ঠানটির ভেতরে থাকা বেশ কয়েকটি গাছ রেজুলেশনের মাধ্যমে বিক্রি করা হলেও তা স্কুলের একাউন্টে জমা করেননি, প্রধান শিক্ষকের কর্মরত থাকা অবস্থায় স্কুল ম্যানেজিং কমিটিরেক ম্যানেজ করে আর্থিক বিষয়ে কোন অডিট না করে দায়মুক্তি নিয়েছেন অবৈধ কমিটির কাছে। এ দায় মুক্তির মিটিংএ প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শাহাবুদ্দিন শাহ এর আপত্তি ছিল যে অডিট টিম গঠন করে কমিটির তদন্তের উপর ভিত্তি করে পরবর্তী মিটিংএ সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা কমিটির অন্যান্য সদস্যরা সংখ্যা গরিষ্ঠ হওয়ায় কর্ণপাত করেননি। জানা গেছে, প্রধান শিক্ষক তৈয়ব উদ্দিন চলতি সালের ২৭ জানুয়ারী অবসর গ্রহন করেন। প্রধান শিক্ষকের পদ শূণ্য হওয়ায় বিধি মোতাবেক প্রধান শিক্ষক নিয়োগের রেজুলেশন করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এ পদে ওই প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক তছলিম উদ্দিন আবেদন করলে তিনি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক থেকে পদত্যাগ করেন। ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা সুকৌশলে সহকারী প্রধান শিক্ষকের পরে সিনিয়র হিসেবে দায়িত্বভার না দিয়ে ৪ জন শিক্ষকের পরে একজন জুনিয়র শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্বভার দেয়া হয়। যা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়ম বহির্ভুত। প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম জানান, তার উপরে আরও ৪ জন শিক্ষক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বভার নিতে অপারগতা প্রকাশ করায় কমিটির আমাকে দায়িত্বভার দিয়েছেন। তবে তার উপরের ৪জন সিনিয়র শিক্ষক সাহেদ, রবিউল, ইন্তাজুল ও নূর আলম ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বভার নিতে অপারগতার কোন আবেদন পত্র দেখাতে পারেননি। তিনি বলেন তারা মৌখিকভাবে অপারগতা জানিয়েছেন। এব্যাপারে বৃহষ্পতিবার মোবাইল ফোনে সিনিয়র শিক্ষক রবিউল ইসলাম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বভার দেয়া বা নেয়ার কথা তাকে জানানো হয়নি এমনকি তিনি দায়িত্ব পালনে অপারগতা প্রকাশের কোন আবেদনও করেননি। ম্যানেজিং কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য কে জানতে চাইলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম কমিটির রেজুলশন দেখিয়ে বলেন যে এ প্রতিষ্ঠানের শাহাবুদ্দিন শাহ প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। প্রধান শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত হওয়ার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, পার্বতীপুরের মধ্যশিলা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শাহাবুদ্দিন শাহ আদালতে মামলার কারনে নিয়োগ স্থগিত রয়েছে। তিনি বলেন প্রধান শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে শাহাবুদ্দিন শাহকে নোটিশ পাঠানো হলেও তিনি নোটিশে স্বাক্ষর করেননি এবং মিটিংএ উপস্থিত হননি। এব্যাপারে প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শাহাবুদ্দিন শাহ বলেন তার কাছে কোন নোটিশ পাঠানো হয়নি এমন কি তাকে মৌখিকভাবে কিংবা ডিজিটাল যুগে মোবাইল ফোনেও তাকে বলা হয়নি। অসৎ উদ্যেশ্যে আমাকে মাইনাস করে নিয়োগের যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্নে খবর পেলে তিনি আদালতের স্বরনাপন্ন হয়েছেন বলে শাহাবুদ্দিন শাহ উল্লেখ করেন। শাহাবুদ্দিন শাহ অভিযোগ করে বলে প্রতিষ্ঠানের যে কোন খাতের আয়ের টাকা ব্যাংকে জমা হবে এবং রেজুলেশনের মাধ্যমে তা ব্যয় করা হবে। কিন্তু এ পতিষ্ঠানে তা করা হচ্ছে না। এছাড়াও ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য ও দাতা হওয়ার যে নিয়ম রয়েছে তা অনুসরণ করা হয়নি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠাতের ম্যানেজিং কমিটি গঠনের নিয়ম না মানায় পার্বতীপুরের মধ্যশিলা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এর বর্তমান ম্যানেজিং কমিটিটি অবৈধ বলে অভিযোগ শাহাবুদ্দিন শাহ সহ অনেকের। তবে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম কিছু জানেন না বলে জানান। পার্বতীপুর উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের মধ্যশিলা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমান ম্যানেজিং কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন করে বিধি অনুযায়ী ম্যানেজিং কমিটি গঠনের দাবী সচেতন মহলের।